বিএনপির গয়েশ্বর ও আমান সমর্থকদের মধ্যে হাতাহাতি

গয়েশ্বর ও আমান

গয়েশ্বর ও আমান

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় ও দলটির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্য আমান উল্লাহ আমানের সমর্থকদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। সদ্য ঘোষিত ঢাকা জেলা বিএনপির কমিটিতে বাধ পড়া নেতাদের সঙ্গে কমিটির নেতাদের হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এ সময় কমিটির যুগ্ম সম্পাদক অ্যাডভোকেট নাজিম উদ্দিন নামে এক নেতা আহত হন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টন ভাসানী ভবনে নবগঠিত ঢাকা জেলা বিএনপির নেতাদের নিয়ে আয়োজিত পরিচিতি সভার বাইরে সামনের রাস্তায় এ ঘটনা ঘটে। তবে এ সময় গয়েশ্বর ও আমান উপস্থিত ছিলেন না। এ বিষয়ে জানতে চাইলে ঢাকা জেলা বিএনপির সভাপতি খন্দকার আবু আশফাক বৃহস্পতিবার রাতে দেশ রূপান্তরকে বলেন, পদবঞ্চিত নেতারা সভা চলাকালীন সময়ে সামনের রাস্তায় কমিটির নেতাদের সঙ্গে সংঘাতে জড়িয়ে পড়েন। এতে অ্যাডভোকেট নাজিম উদ্দিন আহত হন। এটা তাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়। সভায় কোনো ঘটনা ঘটেনি।

ঢাকা বিভাগের সহ সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম আজাদ দেশ রূপান্তরকে বলেন, সভার বাইরে সামনের রাস্তায় নেতাদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। পরে তাদের ডেকে কথা বলা হয়। তাদের বক্তব্য শোনা হয়। পদবঞ্চিত নেতাদের আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত করার আশ্বাস দিলে তারা শান্ত হন।  

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গত ২৭ মার্চ মো. সালাউদ্দিনকে সভাপতি ও খন্দকার আবু আশফাককে সাধারণ সম্পাদক করে ২৬৬ সদস্যের ঢাকা জেলার পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করে বিএনপি। কমিটি ঘোষণার পর অভিযোগ ওঠে ঘোষিত কমিটিতে দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের অনুসারীদের বেশি করে স্থান দেওয়া হয়েছে। বাদ পড়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমানের সমর্থকরা। এর জের ধরে পদবঞ্চিত আমান উল্লাহ আমানের সমর্থকরা বৃহস্পতিবার সভাস্থলের বাইরে প্রতিবাদ জানান।

এ সময় কমিটির নেতাদের সঙ্গে কথাকাটাকাটির একপর্যায়ে দুই পক্ষে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। আমানের সমর্থকরা ভাসানী ভবনের দরজা ভেঙে ফেলার চেষ্টা করেন।

একপর্যায়ে ঢাকা জেলা বিএনপির এক নেতা আহত হন।

এ সময় আমান উল্লাহ আমানের সমর্থকরা ‘অবৈধ কমিটি, মানি না মানবো না’, ‘আওয়ামী লীগের দালালরা, হুঁশিয়ার সাবধান’সহ বিভিন্ন ধরনের স্লোগান দেন। নতুন নেতৃবৃন্দকে অবরুদ্ধ করে রাখেন পদবঞ্চিতরা। হাতাহাতির ঘটনার পর বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আব্দুস সালামসহ অন্য নেতারা সভার কার্যক্রম স্থগিত করে বিক্ষুব্ধদের বক্তব্য শোনেন। পদবঞ্চিতদের বিষয়টি বিবেচনার আশ্বাস দেন। পরে পদবঞ্চিতরা শান্ত হন।

সভায় বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য নিপুণ রায় চৌধুরী, মো. সালাউদ্দিন ও খন্দকার আবু আশফাকসহ ঢাকা জেলা বিএনপির নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

পাঠকের মন্তব্য