ভারতীয় ছাত্রীর রহস্যজনক মৃত্যু, হোস্টেলের থেকে উদ্ধার 

ভারতীয় ছাত্রীর রহস্যজনক মৃত্যু, হোস্টেলের থেকে উদ্ধার 

ভারতীয় ছাত্রীর রহস্যজনক মৃত্যু, হোস্টেলের থেকে উদ্ধার 

ডাক্তারি পড়তে গিয়ে বাংলাদেশে রহস্যজনক ভাবে মৃত্যু হল কাশ্মীরের এক ছাত্রীর। মৃত ছাত্রীর নাম আয়াতুল এইন। বয়স ২২৷ মৃতা কাশ্মীরের অনন্তনাগের দিয়ালগাম এলাকার বাসিন্দা বলে জানা গিয়েছে৷ ছাত্রীর মৃত্যুর খবর আসতেই পরাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের সঙ্গে যোগাযোগ করেন জম্মু-কাশ্মীরের দুই প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লা ও মেহবুবা মুফতি৷ মৃতদেহ দ্রুত ভারতে ফিরিয়ে আনাতে অনুরোধ করেন তাঁরা৷

জানা গিয়েছে, মৃত ছাত্রী বাংলাদেশের তাহির-উল-নিসা মেডিক্যাল কলেজের ডাক্তারি পড়ছিলেন৷ শনিবার সকালে হস্টেলের অন্যান্য ছাত্রীরা অনেক ডাকাডাকি করলেও তিনি দরজা খুলছিলেন না৷ তখন তাঁরা হস্টেল কর্তৃপক্ষকে খবর দেন৷ হস্টেলের নিরাপত্তারক্ষীরা এসে দরজা ভেঙে দেখেন, বিছানার উপর পড়ে রয়েছে আয়াতুলের নিথর দেহ৷ তখন তাঁরাই খবর দেন পুলিশে৷ 

এবং পুলিশ এসে ওই ছাত্রীর দেহ উদ্ধার করে৷ মৃত ছাত্রীর পরিবারের তরফে তাঁর ভাই নাভিদ ভাট জানান, ‘‘শুক্রবার রাতেও আমাদের সঙ্গে বোনের কথা হয়৷ কিন্তু পরের দিন সকালে প্রথমে আমাদের ফোন করে জানানো হয় যে, আয়াতুল ঘুম থেকে উঠছে না৷ এরপর ফের ফোনে জানান হয়, হস্টেলের রুমে মৃত অবস্থায় পাওয়া গিয়েছে আয়াতুলকে।’’

বিদেশে পড়তে গিয়ে মেয়ের অস্বাভাবিক মৃত্যুতে স্বভাবতই ভেঙে পড়েছে আয়াতুলের পরিবার৷ তাঁর মৃত্যুর সঠিক কারণ খুঁজতে যথাযথ তদন্তের দাবি তুলেছেন পরিবারের সদস্যরা। পুলিশের অনুমান, প্রেমঘটিত কোনও কারণে আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়ে থাকতে পারেন কাশ্মীরের ওই মেয়েটি৷ তবে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে পেলেই সমস্ত বিষয়টা পরিষ্কার হবে বলে জানিয়েছেন পুলিশ আধিকারিকরা৷ 

এই ঘটনার পরেই পরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে যোগাযোগ করেন জম্মু-কাশ্মীরের দুই প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লা ও মেহবুবা মুফতি৷ মৃত ছাত্রীর দেহ দ্রুত ভারতে ফিরিয়ে আনার আবেদন করেন তাঁরা৷ এই ঘটনা নিয়ে  টুইট করেন ন্যাশনাল কনফারেন্স নেতা ওমর আবদুল্লা এবং পিডিপি নেত্রী মেহেবুবা মুফতি৷

পাঠকের মন্তব্য