আইপিএলে হারের হ্যাটট্রিক কেকেআরের, জিতল চেন্নাই

আইপিএলে হারের হ্যাটট্রিক কেকেআরের, জিতল চেন্নাই

আইপিএলে হারের হ্যাটট্রিক কেকেআরের, জিতল চেন্নাই

রবিবাসরীয় ইডেন ছিল দ্বিধাবিভক্ত। ঘরের দল কেকেআর বনাম শহরের জামাই ধোনি, এই ছিল দ্বন্দ্ব। এই লড়াইয়ের দ্বিতীয় রাউন্ডেও জয় পেল সিএসকেই। আইপিএলে এটা লাগাতার তৃতীয় হার নাইটদের। ঘরের মাঠে সিএসকের কাছে নাইটদের হারতে হল ৫ উইকেটে। হারের ফলে টুর্নামেন্টে হার ও জিতের সংখ্যা সমান হয়ে গেল কলকাতার। 

কেকেআর : ১৬১-৮ (লিন ৮২)
সিএসকে : ১৬২-৫ (রায়না ৫৮)
সিএসকে ৫ উইকেটে জয়ী।

এবারের আইপিএলে যেন একটা মিথ হয়ে গিয়েছে। টস জেতো আগে বোলিং কর। এবং সহজেই বিপক্ষের দেওয়া টার্গেটে পৌঁছে যাও। রবিবাসরীয় ইডেনের হাইভোল্টেজ ম্যাচে সেই পন্থাই নিলেন সিএসকে অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি। এদিনও টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন মাহি। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ক্রিস লিনের গুরুত্বপূর্ণ ইনিংসের সুবাদে শুরুটা ভাল করলেও মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানদের দায়িত্বজ্ঞানহীন ব্যাটিং কেকেআরের ইনিংসকে আটকে দিল ১৬০-এর কোঠায়।

এদিন শুরু থেকেই সিএসকে বোলারদের চাপে রাখেন ক্রিস লিন। কিন্তু অজি ওপেনার ছাড়া আর কোনও ব্যাটসম্যান দায়িত্ব নিয়ে খেললেন না। এদিন আরও একবার ব্যর্থ হলেন অধিনায়ক দীনেশ কার্তিক। কার্যত ব্যর্থ নীতীশ রানা, শুভমান গিলও। ঘরের মাঠে খাতাও খুলতে পারলেন না রবীন উথাপ্পা। একা লিনের ৮২ রানের ইনিংসে ভর করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটের বিনিময়ে ১৬১ রান করে কেকেআর। ইডেনের ব্যাটিং সহায়ক পিচে এই রানটা খুব একটা বেশি নয়।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা অবশ্য খুব একটা ভাল করেনি সিএসকেও। ২৯ রানের মাথায় প্রথম উইকেটটি তুলে নেয় কেকেআর। কিন্তু, এরপরই ইনিংসের হাল ধরেন রায়না। দুর্দান্ত অর্ধশতরানের ইনিংস খেলে দলকে জয়ের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেন তিনি। বাকি কাজটা সম্পূর্ণ করেন রবীন্দ্র জাদেজা। উনিশতম ইনিংসে পরপর তিনটি বাউন্ডারি মেরে, নাইটদের সব আশা শেষ করে দেন জাড্ডুই। রায়না করেন ৫৮ রান। অন্যদিকে, জাদেজা মাত্র ১৭ বলে ৩১ রান করেন।

পাঠকের মন্তব্য