রাহুল ভারতীয় না ব্রিটিশ ? অভিযোগে মনোনয়ন স্থগিত

রাহুল ভারতীয় নাকি ব্রিটিশ নাগরিক অভিযোগে মনোনয়ন স্থগিত

রাহুল ভারতীয় নাকি ব্রিটিশ নাগরিক অভিযোগে মনোনয়ন স্থগিত

রাহুল গান্ধী, নাকি রাউল ভিঞ্চি! কংগ্রেস সভাপতির নাগরিকত্ব ও শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে উঠে গেল বড় প্রশ্ন। অভিযোগ জমা পড়ায় রাহুলের মনোনয়নের স্ক্রুটিনি সোমবার পর্যন্ত স্থগিত করে দিলেন আমেথির রিটার্নিং অফিসার। কংগ্রেস সভাপতির আইনজীবীকে রিটার্নিং অফিসার বলেছেন, সোমবার সকাল সাড়ে দশটায় যাবতীয় প্রশ্নের জবাব দিতে হবে। প্রাথমিকভাবে কংগ্রেসের দিক থেকে মেলেনি কোনও সদুত্তর। কংগ্রেসের জেলা সভাপতি যোগেন্দ্র মিশ্রের বক্তব্য, সোমবার আইনের পথেই যাবতীয় আপত্তির মোকাবিলা করা হবে। এই অবস্থায় হাতে গরম ইস্যু পেয়ে রে রে করে মাঠে নেমে পড়েছে বিজেপি।

রাহুলের পেশ করা নথিতে অসঙ্গতির অভিযোগ এনেছেন আমেথির এক নির্দল প্রার্থী। তাঁর নাম ধ্রুব লাল। এই নির্দল প্রার্থীর আইনজীবী রবি প্রকাশের বক্তব্য, তিনটি ইস্যু রয়েছে। ব্রিটেনের একটি সংস্থায় নিজেকে ব্রিটিশ নাগরিক হিসেবে দেখিয়েছেন রাহুল গান্ধী। জনপ্রতিনিধি আইন অনুযায়ী, ভারতীয় নাগরিক ছাড়া কেউ নির্বাচনে লড়তে পারেন না। কীসের ভিত্তিতে তিনি ব্রিটিশ নাগরিক হলেন? কীভাবে আবার ভারতীয় নাগরিকত্ব পেলেন? 

আমরা রিটার্নিং অফিসারের কাছে অনুরোধ করেছি, বিষয়টি স্পষ্ট না হওয়া পর্যন্ত তিনি যেন রাহুলের মনোনয়নপত্র গ্রহণ না করেন। রাহুল গান্ধীর শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়েও অনেক প্রশ্ন রয়েছে। পেশ করা নথির সঙ্গে তাঁর শিক্ষাগত যোগ্যতা মিলছে না। কলেজে পড়ার সময় রাউল ভিঞ্চি নাম ব্যবহার করতেন তিনি। রাহুল গান্ধীর নামে কোনও সার্টিফিকেট নেই। রাহুল গান্ধী ও রাউল ভিঞ্চি কি একই ব্যক্তি? যদি তা না হয়, তাহলে তিনি নিজের শিক্ষাগত যোগ্যতার আসল সার্টিফিকেট পেশ করুন। যাতে সেই সার্টিফিকেট খতিয়ে দেখা সম্ভব হয়। উত্তরপ্রদেশের মুখ্য নির্বাচনী অফিসার এল বেঙ্কটেশ্বর লু বলেন, অভিযোগ নিয়ে জেলা নির্বাচনী কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে তথ্য জানতে চেয়েছি।

তাহলে কি ডাল মে কুছ কালা হ্যায়! প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছে বিজেপি। দিল্লিতে বিজেপি মুখপাত্র জি ভি এল নরসিমা রাও বলেন, আপত্তির জবাব দিতে রাহুল গান্ধীর আইনজীবী যেভাবে সময় চেয়েছেন, তা ‘অবাক’ করার মতো বিষয়। গুরুতর অভিযোগ উঠেছে। রাহুল গান্ধী কি ভারতীয় নাগরিক? তিনি কি কখনও ব্রিটিশ নাগরিক হয়েছিলেন? প্রকৃত সত্য সামনে আনা উচিত তাঁর। রাওয়ের আরও বক্তব্য, ২০০৪ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত বিভিন্ন সময় রাহুল গান্ধীর নির্বাচনী হলফনামায় তথ্য গোপন করার চেষ্টা চলেছে। 

রাহুলের দাবি ছিল, কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তিনি ডেভেলপমেন্ট ইকনমিক্সে এম ফিল করেছেন। পরে দাবি করেন, ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজের ডিগ্রি রয়েছে। জানা যায়, রাহুল গান্ধী নন, ওই বছর রাউল ভিঞ্চি নামে একজন ডিগ্রি পেয়েছিলেন। তাহলে কি বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন নাম রয়েছে রাহুল গান্ধীর?

পাঠকের মন্তব্য