প্রবাসীর স্ত্রীর ঘরে প্রেমিক, দরজায় তালা লাগালেন দেবর

পরকীয়া

পরকীয়া

চার বছর যাবৎ স্বামী সৌদি আরবে। এদিকে স্বামীর অবর্তমানে স্ত্রী জড়িয়ে পড়েন কলেজ পড়ুয়া এক ছাত্রের প্রেমে। দুজনে একান্ত কিছু মুহূর্ত কাটাতে প্রেমিককে দাওয়াত দেন নিজ বাড়িতে। কথা অনুযায়ী রাতের আধারে ওই কলেজপড়ুয়া ঢোকেন গৃহবধূর ঘরে। বিষয়টি দৃষ্টিগোচর হয় দেবরের। এরপর ঘরে ঢোকা মাত্রই বাইরে থেকে দরজায় তালা লাগিয়ে দেন দেবর।

শনিবার পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার নন্দনপুর ইউনিয়নের চরভদ্রকোলা গ্রামে এ ঘটনায় চাঞ্চল্যকর পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। এ ঘটনায় পরকিয়ায় লিপ্ত ওই দুজনকেই জেল হাজতে পাঠায় আদালত।

পুলিশ জানিয়েছে, চর ভদ্রকোলা গ্রামের সৌদি আরব প্রবাসী সেলিমের সঙ্গে বিয়ে হয় সুজানগর উপজেলার রাজিয়া খাতুনের। চার বছর আগে বিয়ে করে বউকে রেখে সৌদি আরব চলে যান সেলিম। এরপর পার্শ্ববর্তী রসুলপুর গ্রামের কলেজপড়ুয়া নাইম নামে এক ছাত্রের সঙ্গে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েন রাজিয়া। দুজন একাকী মুহূর্ত কাটাতে শনিবার রাতে ওই গৃহবধূর ঘরে প্রবেশ করেন ওই শিক্ষার্থী। নাইমকে ঘরে ঢুকতে দেখে বাইরে থেকে তালা লাগিয়ে দেন দেবর ফিরোজ। এরপর খবর দেন প্রতিবেশিদের। পরে প্রতিবেশিরা তাদের দুজনকে তুলে দেন পুলিশের হাতে।

এ ঘটনায় ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য রকমত আলী বলেন, ‘এই প্রেমের বিষয় নিয়ে স্থানীয়ভাবে কয়েকবার শালিস হয়েছে।’

সাঁথিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহাঙ্গীর হোসেন সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ‘সোমবার প্রেমিক যুগলকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।’

পাঠকের মন্তব্য