রৌশন আরাকে দেখে নারীরা পুলিশে আসার স্বপ্ন দেখত 

রৌশন আরাকে দেখে দেশের নারীরা পুলিশে আসার স্বপ্ন দেখত 

রৌশন আরাকে দেখে দেশের নারীরা পুলিশে আসার স্বপ্ন দেখত 

অতিরিক্ত পুলিশ মহাপরিদর্শক রৌশন আরা বেগমকে দেখে দেশের নারীরা পুলিশে আসার স্বপ্ন দেখত বলে মন্তব্য করেছেন র‌্যাব মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ। বৃহস্পতিবার রাজধানীর রাজারবাগ পুলিশ লাইনসে তার জানাজা শেষে এ মন্তব্য করেন বেনজীর আহমেদ।

রৌশন আরার সহকর্মী (ব্যাচমেট) র‌্যাব মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ বলেন, ‘আমরা এক সঙ্গে পুলিশে যোগদান করেছিলাম। এক সঙ্গে ট্রেনিং করেছি। তার সাথে আমার অনেক স্মৃতি রয়েছে। দায়িত্ব পালনে তিনি কখনও অসৎ হননি। তার এই সততার ফলে অনেক নারী পুলিশে আসার স্বপ্ন দেখেছেন। তার এই মৃত্যুতে আমরা একজন সৎ ও সাহসী অফিসারকে হারালাম।’

এ সময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, ‘তিনি তার কর্মজীবনের পুরোটা সময় নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করেছেন। অনেক পরিশ্রম করে তিনি ডিআইজিপি হয়েছিলেন। যেভাবে নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন, তাতে আরও ভালো পজিশনে যাওয়ার সুযোগ তৈরি হয়েছিল। তার অকালে চলে যাওয়া পুলিশের জন্য তো বটেই, দেশের জন্য অপূরণীয় ক্ষতি ‘

নামাজে জানাজা শেষে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, র‌্যাব, পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন, পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন, পুলিশ সদর দপ্তরসহ পুলিশ প্রশাসন ও সরকারের বিভিন্ন বিভাগ তাকে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায়।

উল্লেখ্য, গত ৫ মে কঙ্গোতে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশনে বাংলাদেশ পুলিশ ইউনিট সদস্যদের মেডেল প্যারেডে অংশ নিতে গিয়ে স্থানীয় সময় সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় এক ভয়াবহ সড়ক দূর্ঘটনায় ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৫৭ বছর। রৌশন আরা বাংলাদেশ পুলিশে প্রথম নারী পুলিশ সুপার (এসপি) হিসেবে একটি জেলার দায়িত্ব পালন করেন এবং অতিরিক্ত আইজিপি হিসেবে পদোন্নতিপ্রাপ্ত দ্বিতীয় নারী। রৌশন আরা ৭বিসিএস এর মাধ্যমে পুলিশ ক্যাডারে যোগদান করেছিলেন।

বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় রাজধানীর মগবাজার নয়াটোলা জামে মসজিদে তার প্রথম দফা জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর দুপুর ১২টায় মগবাজার ওয়্যারলেস জামে মসজিদে দ্বিতীয় জানাজা এবং বাদ জোহর রাজারবাগ পুলিশ লাইনসে তৃতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজা শেষে আজিমপুর কবরস্থানে তার মরদেহ দাফন করা হবে।

পাঠকের মন্তব্য