শীঘ্রই এই সমস্ত স্মার্টফোনে বন্ধ হচ্ছে হোয়াটসঅ্যাপ

 হোয়াটসঅ্যাপ

হোয়াটসঅ্যাপ

হোয়াটসঅ্যাপ ছাড়া এক মুহূর্ত থাকা অসম্ভব। কিন্তু আপনার স্মার্টফোনটি কি উইনডোজ ওএস সিস্টেমে চলে? তবে আপনার জন্য দুঃসংবাদ। কারণ আর বেশিদিন জনপ্রিয় এই মেসেজিং অ্যাপটি ব্যবহার করতে পারবেন না। আসলে এই সিস্টেমে আর সাপোর্ট করবে না হোয়াটসঅ্যাপ।

যুবপ্রজন্মের দিনের বেশিরভাগ সময়টা কেটে যায় হোয়াটসঅ্যাপে চোখ রেখেই। জন্মদিনের শুভেচ্ছা থেকে বিজয়ার প্রমাণ, সবই সারা হয় ভারচুয়াল দুনিয়ায়। শুধু যুবপ্রজন্ম বললেও ভুল বলা হয়। কারণ এখন সব বয়সের স্মার্টফোন ব্যবহারকারীরাই হোয়াটসঅ্যাপ নির্ভর। কিন্তু যাঁরা এখনও উইনডোজ ফোন ব্যবহার করেন, তাঁদের এবার ফোন বদলে ফেলার সময় হয়েছে। 

মেসেজিং অ্যাপটি তাদের মোবাইল সাপোর্ট ব্লগটি আপডেট করে জানিয়েছে, চলতি বছর ৩১ ডিসেম্বরের পর উইনডোজ ওএস সিস্টেমের স্মার্টফোনে আর কাজ করবে না হোয়াটসঅ্যাপ। অর্থাৎ যাঁরা এসব মোবাইল ফোন ব্যবহার করেন তাঁরা কোনওভাবেই হোয়াটসঅ্যাপ আপডেট করতে পারবেন না। ফলে অ্যাপটি সেসব ফোনে বন্ধই হয়ে যাবে। আগামী জুন মাসেই শেষবার এ সমস্ত ফোনে আপডেটের অপশন দেবে হোয়াটসঅ্যাপ। প্রশ্ন করতে পারেন, যদি উইনডোজ-এর আপডেট ভার্সানটি ব্যবহার করেন, তাহলেও কি হোয়াটসঅ্যাপ আপডেট করে ব্যবহার করা যাবে? উত্তর হল, না। ২০২০ সালের ১ জানুয়ারি থেকে কোনও উইনডোজ ইউজারই ফেসবুকের এই ইনস্ট্যান্ট মেসেজিং অ্যাপ ব্যবহার করতে পারবেন না। তবে শুধু উইনডোজ ব্যবহারকারীরাই নন, সমস্যায় পড়তে চলেছেন অ্যান্ড্রয়েড এবং আইফোনে ইউজাররাও।

হোয়াটসঅ্যাপের তরফে জানানো হয়েছে, যাঁদের স্মার্টফোন অ্যান্ড্রয়েডের ২.৩.৭ বা তার থেকে পুরনো ভার্সানে এবং আইফোন আইওএস ৭ বা তারও পুরনো ভার্সানে চলে, আগামী বছর ১ ফেব্রুয়ারির পর থেকে তাঁদের ফোনেও আর এই মেসেজিং অ্যাপটি কাজ করবে না। উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের ৩১ ডিসেম্বরই উইনডোজ ফোন ৭ ভার্সানে হোয়াটসঅ্যাপ বন্ধ করেছিল।

পাঠকের মন্তব্য