বগুড়া-৬ আসনের উপনির্বাচনে অংশ নেবে বিএনপি

বগুড়া-৬ আসনের উপনির্বাচনে অংশ নেবে বিএনপি

বগুড়া-৬ আসনের উপনির্বাচনে অংশ নেবে বিএনপি

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম শপথ না নেওয়ায় শূন্য হওয়া বগুড়া-৬ আসনের উপনির্বাচনে অংশ নেবে বিএনপি। এছাড়াও জাতীয় সংসদে আনুপাতিক হারে পাওয়া একটি সংরক্ষিত নারী আসনেও মনোনয়ন দেবে দলটি।

গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় ২০-দলীয় জোটের বৈঠকে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর শরিকদের এ কথা জানিয়েছেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ২০ দলের শরিক ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) চেয়ারম্যান ফরিদুজ্জামান ফরহাদ। তিনি বলেন, সংরক্ষিত নারী আসন এবং বগুড়া-৬ আসনের নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থী দেবে বলে বৈঠকে আমাদের জানানো হয়েছে।

এছাড়া বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মো. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান বলেন, বগুড়া-৬ আসনের উপনির্বাচন এবং সংরক্ষিত আসনের মনোনয়নের ব্যাপারে আলোচনা হয়েছে। শিগগিরই বিএনপি এ ব্যাপরে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে।

জোটের শরিক একটি দলের চেয়ারম্যান বলেন, বগুড়া-৬ আসনে নির্বাচনে অংশ নেয়া এবং সংরক্ষিত আসনে মনোনয়নের ব্যাপারে আমাদের সঙ্গে কথা হয়েছে। তাদের বডি ল্যাংগুয়েজ আমার কাছে ইতিবাচক মনে হয়েছে।

বিএনপির পাঁচজন সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নিলেও মির্জা ফখরুল ইসলাম শপথ নেননি। আগামী ২৪ জুন তার আসনে (বগুড়া-৬) নির্বাচন হবে। জানা গেছে, বিএনপি নির্বাচনে অংশ নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিলেও এখনো প্রার্থী ঠিক করেনি। সংরক্ষিত আসনের প্রার্থীও চূড়ান্ত হয়নি।

বৈঠকে উপস্থিত একাধিক সূত্র জানায়, বৈঠকে একাদশ সংসদ নির্বাচনের ফলাফল প্রত্যাখ্যান করে বিএনপির সাংসদদের শপথ নেওয়ার বিষয়ে শরিক দলের অনেকে প্রশ্ন তোলেন। এত দিন যে তারা বর্তমান সংসদকে ‘অবৈধ’ বলে আসছেন, এখন তারা কী বলবেন। জবাবে বৈঠকে উপস্থিত বিএনপির দুই নেতা বলেছেন, রাজনৈতিক কৌশল থেকে সংসদে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

একটি শরিক দলের প্রধান বলেন, জবাবে ২০–দলীয় জোটের সমন্বয়ক ও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, বিএনপির যারা সংসদে যোগ দিয়েছেন, তারাও বলেছেন ৩০ ডিসেম্বর ভোটের আগের রাতে ডাকাতি হয়েছে। সুতরাং এ সংসদ অবৈধ।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সভাপতিত্বে বৈঠকে স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান ছাড়াও জামায়াতের মাওলানা আবদুল হালিম, জাতীয় পার্টির (জাফর) মোস্তফা জামাল হায়দার, কল্যাণ পার্টির সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, এলডিপির রেদোয়ান আহমেদ, জাগপার খন্দকার লুৎফর রহমান, ন্যাপ-ভাসানীর আজহারুল ইসলাম, বাংলাদেশ ন্যাপের এমএন শাওন সাদেকী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

তবে এলডিপির সভাপতি অলি আহমদ এবং জোট ছেড়ে যাওয়া আন্দালিব রহমান পার্থ বৈঠকে যোগ দেননি। বিকাল ৪টায় শুরু হওয়া এ বৈঠক শেষে জোট নেতাদের নিয়ে ইফতার করেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

পাঠকের মন্তব্য