কক্সবাজার ও পাবনায়

বন্দুকযুদ্ধে ২ রোহিঙ্গাসহ নিহত ৪

কক্সবাজার ও পাবনায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ২ রোহিঙ্গাসহ নিহত ৪

কক্সবাজার ও পাবনায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ২ রোহিঙ্গাসহ নিহত ৪

বাংলাদেশের কক্সবাজার ও  পাবনা জেলায় কথিত বন্দুকযুদ্ধে দুই রোহিঙ্গাসহ চার ‘মাদকব্যবসায়ী’ নিহত হয়েছে। এ সময় অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করা হয়েছে।

টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাস দাবি করছেন, গোপন তথ্যের ভিত্তিতে গতকাল দিবাগত রাতে পুলিশ শামলাপুর মেরিন ড্রাইভ সড়কে অভিযান পরিচালনা করে। এ সময় পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালায় মানবপাচারকারীরা। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। পরে পালানোর সময় দুই মানবপাচারকারী গুলিবিদ্ধ হয়। পরে তাদের উদ্ধার করে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

নিহতরা হলেন- শ্যামলাপুর ২৩ নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের আব্দুর রহমানের ছেলে আজিম উদ্দিন (২২) ও উখিয়া জামতলির ১৫ নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের রহমান আলীর ছেলে আব্দুস সালাম (৫২)।

ওসি প্রদীপের দাবি, ঘটনাস্থল থেকে দুটি আগ্নেয়াস্ত্র এবং পাঁচটি বুলেট উদ্ধার করা হয়।

এদিকে মঙ্গলবার ভোর রাতে সদর উপজেলার কাটাপাহার এলাকায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ সায়েদিুল মোস্তফা বুলু (৪৪) নামে এক সন্দেহভাজন ‘মাদক ব্যবসায়ী’ নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। পরে ঘটনাস্থলে তল্লাশি চালিয়ে ৪০০ ইয়াবা, একটি দেশে তৈরি বন্দুক ও দুটি গুলি উদ্ধার করা হয় বলে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফরিদ উদ্দিন খন্দকার জানান।

অন্যদিকে, পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ হাফিজুর রহমান তিতাস (৩৩) নামে এক মাদকবিক্রেতা নিহত হয়েছেন। এসময় পুলিশের পাঁচ সদস্য আহত হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ একটি বিদেশি রিভলবার ও দুই রাউন্ড গুলি উদ্ধার করেছে।

মঙ্গলবার সকাল ১০টায় ময়নাতদন্তের জন্য সুরতাহাল শেষে মরদেহ ঈশ্বরদী থানায় নিয়ে আসা হয়। এর আগে ঈশ্বরদী উপজেলার সাঁড়া ঝাউদিয়া এলাকায় রাত আড়াইটার দিকে এ ‘বন্দুকযুদ্ধ’ হয়। 

পাঠকের মন্তব্য