শেখ হাসিনা মানেই গণতন্ত্র, শেখ হাসিনা মানেই উন্নয়ন-অগ্রগতি

শেখ হাসিনা মানেই গণতন্ত্র, শেখ হাসিনা মানেই উন্নয়ন-অগ্রগতি

শেখ হাসিনা মানেই গণতন্ত্র, শেখ হাসিনা মানেই উন্নয়ন-অগ্রগতি

শেখ হাসিনা মানেই গণতন্ত্র, শেখ হাসিনা মানেই উন্নয়ন-অগ্রগতি। একমাত্র শেখ হাসিনাই আওয়ামী লীগকে এক এবং অভিন্ন খণ্ড করে রাখতে পারেন। এ কারণে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে তার কোনো বিকল্প নেই।

শুক্রবার ( ১৭ মে) রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে আওয়ামী লীগ আয়োজিত দেশরত্ন শেখ হাসিনার ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভায় বক্তারা এ সব কথা বলেন।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলির সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন করেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলির সদস্য ড. আবদুর রাজ্জাক, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আবদুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাছিম, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, এ কে এম এনামুল হক শামীম, মানব সম্পদ উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক শামসুর নাহার চাঁপা, উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, উপ-দফতর সম্পাদক ব্যরিষ্টার বিপ্লব বড়ুয়াসহ আরও অনেকে। 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বর্তমান সময়ের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের প্রবীণ নেতা আমির হোসেন আমু। 

সভাপতির বক্তব্যে বেগম মতিয়া চৌধুুরী বলেন, শেখ হাসিনা এই দিন বাংলাদেশে ফিরেছিলেন। দেশে ফিরেই তিনি মানুষের ভোট ও ভাতের অধিকার প্রতিষ্ঠার কথা বলেছিলেন। বাংলাদেশের সর্বপ্রথম ভোট ও ভাতের অধিকারের কথা তিনি বলেছেন। বর্তমানে তিনি মানুষের ভোট ও ভাতের অধিকার প্রতিষ্ঠা করে তাদের জীবন উন্নয়নের দিকে নিয়ে যাচ্ছেন। 

মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেন, শেখ হাসিনা বাঙালি জাতিকে আলোর পথ দেখিয়েছেন। বাঙালি জাতির আলোকবর্তিকা তিনি। বিএনপি নেতাদের সমালোচনা করে এ সময় হানিফ বলেন, কথায়় কথায় যারা আইনের শাসনের কথা বলেন তাদের বলতে চাই- ফিরে তাকান নিজের দিকে।নিজের শাসন আমলে দেশের অবস্থা কেমন ছিল।

আবদুর রহমান বলেন, ১৯৮১ সালের আজকের এই দিনে দেশে ফিরে মানিক মিয়া অ্যাভিনিউতে লাখো জনতার উপস্থিতিতে শেখ হাসিনা বলেছিলেন, আমি বাংলার মানুষকে ছেড়ে কোথাও পালিয়ে যাব না। তিনি তার কথা রেখেছেন, তিনি পালিয়ে যাননি। শেখ হাসিনাই আওয়ামী লীগকে এক ও অখণ্ড রাখতেে পারেন।

জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, শেখ হাসিনা যখন দেশে ফিরলেন সেদিন থেকেই শুধু দলের বাইরে নয়, দলের ভেতরেও ষড়যন্ত্র হয়েছিল। তবে তিনি সব ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে সামনে এগিয়ে চলেছেন।

হাসান মাহমুদ বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ অদম্যগতিতে উন্নয়নের পথে এগিয়ে চলছে। উন্নয়ন ধারা বেগবান রাখতে হলে শেখ হাসিনার হাতকে আরও শক্তিশালী করতে হবে। ৩৮ বছর আগে তিনি বাংলাদেশে ফেরেন। গত ৩৮ বছরের পথচলায় শেখ হাসিনা বাংলাদেশের মানুষ সাথে ছিলেন এবং আছেন। শেখ হাসিনা এক বিন্দুও তার সংগ্রামের কাফেলা থেকে বিচ্যুত হয়নি। গত ৩৮ বছররের পথচলায় বাংলাদেশের মানুষের ভাত ও ভোটের অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে গিয়ে ১৯ বার হামলার সম্মুখীন হয়েছেন।

আওয়ামী লীগের এ নেতা আরও বলেন, বারবার মৃত্যুর উপত্যকার থেকে ফিরে এসে আমাদের নেত্রী, জননেত্রী শেখ হাসিনা দ্বিধান্বিত হননি, বিচলিত হননি বরং আরও দীপ্ত পদভারে বাংলাদেশ সংগ্রামের কাফেলাকে এগিয়ে নিয়ে গেছেন। আর শেখ হাসিনা মা-বাবা, ভাই সবাইকে হারিয়ে বাংলাদেশ মানুষকে আপন করে নিয়ে দেশের অগ্রগতির কাফেলাকে এগিয়ে নিয়ে গেছেন।

 

পাঠকের মন্তব্য