অপরাজিত বাংলাদেশই চ্যাম্পিয়ন ।। অভিনন্দন 

অপরাজিত বাংলাদেশই চ্যাম্পিয়ন ।। অভিনন্দন 

অপরাজিত বাংলাদেশই চ্যাম্পিয়ন ।। অভিনন্দন 

এই প্রথম নিজেদের ক্রিকেট ইতিহাসে কোনো টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হলো বাংলাদেশ। প্রথমে সৌম্য সরকারের ঝড়, এরপর শেষ দিকে এসে ঝড় তুললেন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। সৌম্যর ২৭ বলে হাফ সেঞ্চুরির পর মোসাদ্দেকের ২০ বল হাফ সেঞ্চুরি। তাদের দুই ঝড়ো ইনিংসের ওপর ভর করে বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়ন।

সিরিজে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে একটি ম্যাচ বৃষ্টিতে ভেস্তে গেলেও বাকি তিন ম্যাচ খেলে তিনটিতেই জয় তুলে নেয় বাংলাদেশ। নিজেদের প্রথম ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজের দেয়া ২৬১ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ৮ উইকেটের বড় জয় পায় সফরকারীরা। এরপরের ম্যাচই বৃষ্টির কারণে ঘোষিত হয় পরিত্যক্ত। নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে ফের উইন্ডিজদের মোকাবেলা করে মাশরাফীর দল। মাঠে নামার আগে সমীকরণ ছিল এমন, ম্যাচ জিতলেই ফাইনাল নিশ্চিত বাংলাদেশের। সে লক্ষ্যই পূরণ করে দল। ক্যারিবিয়দের দ্বিতীয় দেখায়ও ধরাশায়ী করে টাইগাররা। হারায় ৫ উইকেট। নিশ্চিত করে ফাইনাল। 

এদিকে ফাইনাল নিশ্চিত হওয়ায় প্রথম পর্বের শেষ ম্যাচে আইরিশদের বিপক্ষে একাদশে ৪ পরিবর্তন নিয়ে মাঠে নামে বাঘেরা। তবে এ ম্যাচেও জয়ের জন্য বেগ পেতে হয়নি সাকিব-তামিমদের। আবু জায়েদ রাহীর স্মরণীয় ৫ উইকেট শিকারের দিনে বাংলাদেশ স্বাগতিকদের হেসে-খেলে হারায় ৬ উইকেটের ব্যবধানে।  

অপরাজিত থেকেই আজ তাই ফাইনালে উইন্ডিজদের বিপক্ষে খেলতে নামে বাংলাদেশ। তবে টানা জয়ে আত্মবিশ্বাসের তুঙ্গে থাকলেও ফাইনালে ক্যারিবিয়দের ছোট করে দেখতে নারাজ ছিলো বাংলাদেশ দলপতি মাশরাফী। তিনি জানিয়েছিলেন, সমান সুযোগ রয়েছে দু'দলের সামনেই। প্রতিপক্ষ দলের অধিনায়ক জেসন হোল্ডার অবশ্য নিজেদের ভুল শোধরাতে পারলেই শিরোপা জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী।

এবার আর ভুল করলেন না মাশরাফি বাহিনী। চারটি ওয়ানডে টুর্নামেন্ট, দুটি টি-টোয়েন্টি। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফাইনাল মানেই ম্যাচ শেষে বাংলাদেশের আক্ষেপ। আজ ডাবলিনে কি সে আক্ষেপ দূর হলো বাংলাদেশের। উইন্ডিজকে ৫ উইকেটে হারিয়ে অবশেষে শিরোপার স্বপ্ন পূরণ টাইগারদের।

বিস্তারিত আসছে... 

পাঠকের মন্তব্য