চা-ওয়ালা থেকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী হতে 'হেডম' লাগে !

আমি কেন নরেন্দ্র মোদিকে পছন্দ করি, এর ব্যাখ্যা 

আমি কেন নরেন্দ্র মোদিকে পছন্দ করি, এর ব্যাখ্যা 

ফেসবুক স্ট্যাটাস : নরেন্দ্র মোদী চা-ওয়ালার সন্তান, নিজেও চা-বিক্রী করেছেন। কতখানি রাজনৈতিক মেধা, মনোবল, প্রখর বুদ্ধি, নেতৃত্বের গুণাবলি থাকলে পরে তবেই একজন চা বিক্রেতা থেকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী হতে পারেন! এবং অবশ্যই জনগণের ভোট পেয়ে প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন।

এখন যদি প্রশ্ন করেন, ভারতের জনগণ কেন একজন হিন্দু মৌলবাদীকে ভোট দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বানালো? এই প্রশ্ন ভারতের জনগণকে করবেন, আপনার আহ্লাদী প্রশ্নের উত্তর তারা দিবে।

আরেকটা কথা, আমি এমনিতেও সুন্দর হ্যান্ডসাম পুরুষদের পছন্দ করি। বিল ক্লিন্টনের একটু চরিত্র স্খলন ঘটেছিল, তারপরেও বিল ক্লিন্টনকে আমি পছন্দ করি। বারাক ওবামা কী হ্যান্ডসাম, পছন্দ করবোই। রাজীব গান্ধী তো আমার কাছে মহানায়কের মত ছিলেন।

উত্তম কুমার, কিশোর কুমার দুজনেরই চরিত্রে অনেক লুটোপুটি ব্যাপার ছিল, সব জেনেও এই দুজনকে আমি পছন্দ করি, তাঁরা বেঁচে নেই, তাতে কি, তাদের ছবির দিকে তাকিয়ে থাকি।

নরেন্দ্র মোদি তুখোড় নেতা। রাজনীতি খুব ভাল বুঝেন। যেদিন উনার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে অভিষেক হওয়ার কথা ছিল, সেদিন ছিল ২১শে মে, প্রয়াত প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধীর মৃত্যু দিবস। রাজনৈতিক শিষ্টাচার বলতে যেটা বুঝায়, নরেন্দ্র মোদি প্রথম দিনেই সেই শিষ্টাচার দেখিয়েছেন। রাজীব গান্ধী ছিলেন নরেন্দ্র মোদির বিরোধি পক্ষ কংগ্রেসের নেতা। নরেন্দ্র মোদি কিন্তু রাজীব গান্ধির মৃত্যু বার্ষিকীর দিন শপথ গ্রহণ করেননি, দুই দিন পরে করেছেন।

চা-ওয়ালা থেকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী হতে 'হেডম' লাগে! নরেন্দ্র মোদি সেই হেডম দেখিয়েছেন।

রাজনৈতিক শিষ্টাচারের আরেকটি নিদর্শন উনি রেখে গেছেন বাংলাদেশ সফরে এসে। এর আগে ভারতের কোন প্রধানমন্ত্রী এত তাড়াতাড়ি বাংলাদেশ সফরে আসেননি। ( শ্রীমতি ইন্দিরা গান্ধীর কথা আলাদা, তিনি আমাদের কাছে দেবীর মত)। বাংলাদেশের মানুষ নরেন্দ্র মোদিকে পছন্দ করেনা, সমর্থন করেনা সব জেনেই মোদিজি এসেছিলেন। নিজের স্বার্থেই হোক, উনার দেশের স্বার্থেই হোক, বাংলাদেশে এসে উনি যে বক্তৃতা দিয়েছিলেন, সেদিনই আমি উনার ব্যক্তিত্বের প্রেমে পড়ে যাই।

এমন একজন নেতাকে সম্মান না করে পারা যায়! আপনি সম্মান নাও করতে পারেন, তার জন্য আমি ব্যাখ্যা চাইবোনা। কিন্তু আমি কাকে সম্মান করবো, কাকে পছন্দ করবো, সেটা আমার ব্যাপার। কেন আপনার অপছন্দের ব্যক্তিকে আমি পছন্দ করি, এর ব্যাখ্যাও আমার কাছে চাওয়া উচিত নয়।

ফেসবুক স্ট্যাটাস লিঙ্ক : রিতা রায় মিঠু

পাঠকের মন্তব্য