জয়ের পরদিনই পদত্যাগ করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি

জয়ের পরদিনই পদত্যাগ করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি

জয়ের পরদিনই পদত্যাগ করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি

মোদি সুনামিতে ফের দিল্লিতে ক্ষমতা দখল করেছে গেরুয়া শিবির। তিনশোর বেশি আসন নিয়ে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে বিজেপি। এনডিএ-র আসন সংখ্যা সাড়ে তিনশোর কোঠায়। বিশাল জয়ের পরদিনই সপার্ষদ পদত্যাগ করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। দিল্লিতে শুক্রবার মন্ত্রিসভার বৈঠকের পরই পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নেন প্রধানমন্ত্রী। এরপরই রাষ্ট্রপতি ভবনে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং অন্যান্য মন্ত্রীরা পদত্যাগপত্র জমা দিয়ে আসেন।

নিয়ম অনুযায়ী মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই পদত্যাগ করতে হয় বিদায়ী প্রধানমন্ত্রী তথা অন্যান্য মন্ত্রীদের। সেইমতো এদিন মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর রাষ্ট্রপতি ভবনে গিয়ে পদত্যাগ করেন প্রধানমন্ত্রী ও মন্ত্রিসভার সদস্যরা। তাঁদের পদত্যাগপত্র গ্রহণও করেছেন রাষ্ট্রপতি। তবে, নতুন সরকার গঠন না হওয়া পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী ও মন্ত্রিসভার অন্যান্য সদস্যদের কাজ চালিয়ে যেতে অনুরোধ করেছেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। সঙ্গে আগামী সরকারের রণকৌশল কী হবে, বা কীভাবে কাজ করা হবে তা নিয়ে আলোচনা হয়। এদিনের মন্ত্রিসভার বৈঠকে হাজির ছিলেন না বিদায়ী অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি। এই বৈঠকেই ষোড়শ লোকসভা ভেঙে দেওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয় মন্ত্রিদের তরফে। সেই প্রস্তাব মেনে রাষ্ট্রপতি এবার লোকসভা ভেঙে দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু করবেন, এবং নতুন সরকার গঠিত হবে। উল্লেখ্য, বর্তমান সরকারের মেয়াদ ৩ জুন পর্যন্ত। তার আগেই নতুন সরকার গঠনের কাজটি সম্পূর্ণ করতে হবে। 

সূত্রের খবর, আগামী ৩০ জুন ফের প্রধানমন্ত্রী পদে শপথ নিতে পারেন মোদি। সেদিনই মোদির নতুন মন্ত্রিসভাও শপথ নিতে পারে। মনে করা হচ্ছে মোদির নতুন মন্ত্রিসভায় একাধিক নতুন মুখ থাকতে পারে। বাংলা থেকে অন্তত চারজন পেতে পারেন মন্ত্রিত্ব। পদোন্নতি হতে পারে স্মৃতি ইরানিরও। তবে, শারীরিক অসুস্থতার জন্য অর্থমন্ত্রীর পদ নাও পেতে পারেন অরুণ জেটলি। তবে, এসবই এখন জল্পনার পর্যায়ে। এদিন, জেটলি নিজের বাড়িতে অর্থমন্ত্রকের আধিকারিকদের নিয়ে বৈঠক করেছেন। এদিকে আগামী ২৮ মে নরেন্দ্র মোদি বারাণসীতে যাবেন বলে জানা গিয়েছে।

পাঠকের মন্তব্য