টাইগারদের আনুষ্ঠানিকভাবে বিশ্বকাপ অভিযান শুরু

টাইগারদের আনুষ্ঠানিকভাবে বিশ্বকাপ অভিযানও শুরু

টাইগারদের আনুষ্ঠানিকভাবে বিশ্বকাপ অভিযানও শুরু

লেস্টার ছেড়ে কার্ডিফে পৌঁছেছে বাংলাদেশ দল তিনদিন হয়ে গেছে। সেখানে অনুশীলন হয়েছে, ব্যাট-বলে নিজেদের ঝালিয়ে নিয়েছেন টাইগাররা। কিন্তু সুখস্মৃতি বিজরিত মাঠ সোফিয়া গার্ডেন্সে পা ফেলা হয়নি। তা নিয়ে কিছুটা আক্ষেপ যদি শিবিরের কোনো ক্রিকেটারের মাঝে থেকেও থাকে, সেটা দূর হয়ে যাচ্ছে আজই। পয়মন্ত এই মাঠেই যে আজ পাকিস্তানের বিপক্ষে নিজেদের দুটো প্রস্তুতি ম্যাচের প্রথমটি খেলতে নামবে মাশরাফি বিন মর্তুজার দল। তাতে আনুষ্ঠানিকভাবে বিশ্বকাপ অভিযানও শুরু হয়ে যাবে তাদের।

দেশ ছেড়ে ১ মে আয়ারল্যান্ডের পথে পা বাড়িয়েছিল মাশরাফি ব্রিগেড। যেহেতু এরপর আর দেশে ফেরেনি তারা, আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলে সরাসরি ইংল্যান্ডে পাড়ি জমিয়েছে; সেই হিসেবে বাংলাদেশের বিশ^কাপ অভিযান শুরু হয়েছে দেশ ছাড়ার দিন থেকেই। এরপর দিন যাচ্ছে, ঠিকানা বদলাচ্ছে টাইগাররা, বিশ্বকাপের চ‚ড়ান্ত মঞ্চে পা রাখার আগে ডিঙোচ্ছে এক একটি সিঁড়ি। এখন সেই সিঁড়ির একেবারে শেষ ধাপে দাঁড়িয়ে তারা। কার্ডিফে পৌঁছানোর পর থেকেই আইসিসির অতিথি বাংলাদেশ দল। সেই অর্থে কার্ডিফে পা রাখার সঙ্গে সঙ্গেই আনুষ্ঠানিকভাবে বিশ^কাপ অভিযান শুরু হয়ে গেছে তাদের।

কখন-কবে-কীভাবে বিশ^কাপ অভিযান শুরু হলো বা হচ্ছে, সেসব নিয়ে অবশ্য মাথা ঘামানোর সময় নেই টিম বাংলাদেশের। মাঠে পারফরম্যান্সের আলোয় নিজেদের রাঙানোর দিকেই মনোযোগী ক্রিকেটাররা। তাই প্রস্তুতি ম্যাচটাও বাড়তি গুরুত্ব পাচ্ছে। কেননা আজকের প্রতিপক্ষ পাকিস্তানকেও তো মূলপর্বে মোকাবেলা করতে হবে। সেই ম্যাচের জন্য আত্মবিশ্বাস আরও খানিকটা বাড়িয়ে নেওয়ার সুযোগ এই প্রস্তুতি ম্যাচ। পাকিস্তানকে আগের চার ম্যাচে হারানোর ধারাটা অব্যাহত রাখার একটা বাড়তি চ্যালেঞ্জও থাকছে। সেই চ্যালেঞ্জে জয়ী হতে ছন্নছাড়া এক পাকিস্তানকেই পাচ্ছে বাংলাদেশ। আগের দিনই নিজেদের প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচে আফগানিস্তানের কাছে হেরেছে সরফরাজ আহমেদের দল।

সরফরাজদের আরেকটি হারের তিক্ত অনুভ‚তি দেওয়ার মানসেই আজ সোফিয়া গার্ডেন্সে নামবে ঐতিহ্যবাহী ক্যাথেড্রাল স্কুল মাঠে গত দুদিনে নিজেদের ঝালিয়ে নেওয়া বাংলাদেশ। পয়মন্ত ভেন্যুতে পা রাখার পর নিশ্চিত করেই টাইগারদের মানসপটে ভেসে উঠবে ২০১৭ সালের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে সেমিফাইনাল খেলার পথে এগিয়ে যাওয়ার ম্যাচটার কথা। মনে পড়বে ২০০৫ সালের অস্ট্রেলিয়া-বধের ইতিকথাও। ওই দুটো জয় বাংলাদেশের ক্রিকেট অধ্যায়ে উজ্জ্বল দুটো উপখ্যান হয়েই আছে, থাকবেও।

দুটো ম্যাচ খেলে দুটোতেই জয়, সোফিয়া গার্ডেন্স বাংলাদেশের জন্য কতটা পয়মন্ত, তা আর নতুন করে বলার অপেক্ষা রাখে না। ওই দুটো জয় বাংলাদেশ সম্পর্কে ইংলিশদের দৃষ্টিভঙ্গিও পাল্টে দিয়েছে। আসলে সাম্প্রতিক সময়ে ওয়ানডে ক্রিকেটে যেমন ধারার পারফরম্যান্স দেখাচ্ছে মাশরাফি ব্রিগেড, তাতে দলটির মাঝে দারুণ কিছু করে দেখানোর সামর্থ্য দেখছেন বিশ্বকাপের আয়োজক দেশটির অনেকেই। এই বাংলাদেশ সেমিফাইনাল খেলতে পারে, এমন সম্ভাবনা দেখছেন তারাও। টাইগারদের অনুশীলন দেখতেও ভিড় জমাচ্ছেন স্থানীয়রা, নিচ্ছেন অটোগ্রাফ। স্থানীয়দের এই আগ্রহও বাড়তি প্রেরণা দেবে তামিম-মুশফিকদের। তবে প্রস্তুতি ম্যাচে মাঠে নামার আগে বাংলাদেশের সব থেকে বড় অনুপ্রেরণা কিন্তু কার্ডিফের ওই মাঠ, সোফিয়া গার্ডেন্স। শুক্রবার শ্রীলঙ্কা আর দক্ষিণ আফ্রিকার প্রস্তুতি ম্যাচ থাকায় যে মাঠে অনুশীলন করতে পারেনি তারা।

পাঠকের মন্তব্য