অর্থাভাবে লেখাপড়া অনিশ্চিত মেধাবী ছাত্রী নূরেফার 

অর্থাভাবে লেখাপড়া অনিশ্চিত মেধাবী ছাত্রী নূরেফা ইয়াছমিনের 

অর্থাভাবে লেখাপড়া অনিশ্চিত মেধাবী ছাত্রী নূরেফা ইয়াছমিনের 

হাতীবান্ধা প্রতিনিধি, লালমনিরহাট : লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার ডাউয়াবাড়ী ইউনিয়নের প্রান্নাথ পাটিকাপাড়া গ্রামের অতিদরিদ্র পরিবারের সন্তান নূরেফা ইয়াছমিন। তার পিতা হামিদুল ইসলাম একজন দিন মজুর।

নূরেফার ৩ বছর বয়সে তার মা মনসুরা বেগম মানসিক ভারসাম্য হারান। তখন থেকে সে আশ্রয় নেয় উপজেলার টংভাঙ্গা ইউনিয়নের পশ্চিম বেজগ্রাম নানা বাড়িতে। নানা প্রতিকূলতার মধ্যে জেএসসি, এসএসসিতে ভালো রেজাল্ট করেছেন তিনি। কিন্তু অর্থাভাবে বর্তমানে তার লেখাপড়া অনেকটা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। অন্যের সহযোগিতা কিংবা টিউশনির টাকায় চলে তার লেখাপড়া।

জানা যায়, নানা প্রতিকুলতার মাঝেও জীবন সংগ্রাম চালিয়ে এবারের এসএসসি পরীক্ষায় আলহাজ্ব সমসের উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় অংশ গ্রহণ করে জিপিএ-৫ অর্জন করেন। জেএসসিতেও গোল্ডেন এ প্লাস পেয়েছিলেন। দারিদ্রতা তার মেধা বিকাশে প্রধান অন্তরায়। আর্থিক অভাব অনটনের কারণে বর্তমানে তার উচ্চ শিক্ষা অর্জন অনেকটা অনিশ্চিত। সমাজের উচ্চবিত্তরা এগিয়ে এলে হয়তো দেশ ও জাতির কল্যাণে ভূমিকা রাখতে পারবে নূরেফা।

নূরেফা ইয়াছমিন বলেন, মায়ের অসুস্থ্যতার কারণে আমার স্বাভাবিক ভাবে বেড়ে উঠা লেখাপড়া ছিল অনিশ্চিত। কিন্তু ইচ্ছাশক্তির কারণে এসএসসিতে আমার এ সাফল্য। ভবিষ্যতে আইনজীবী হওয়ার স্বপ্নে বাধা দারিদ্রতা।

স্কুল প্রধান শিক্ষক নুর মোহাম্মদ বাবলু বলেন, নূরেফা ইয়াছমিন নানা প্রতিকুলতার মাঝে বেড়ে উঠেছেন। কিন্তু তার ইচ্ছা শক্তি ও মানসিক মনোবলের কারণে সাফল্য পেয়েছে। ছাত্রীটি মেধাবী। কারও সহযোগিতা পেলে তার মেধা বিকশিত হবে। তার মেধা জাতির কল্যাণে আসবে।

পাঠকের মন্তব্য