নেটদুনিয়ায় রাতারাতি বিখ্যাত হয়ে উঠেছিলেন যারা 

নেটদুনিয়ায় রাতারাতি বিখ্যাত হয়ে উঠেছিলেন যারা 

নেটদুনিয়ায় রাতারাতি বিখ্যাত হয়ে উঠেছিলেন যারা 

সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে এখন বিখ্যাত হয়ে ওঠা এক প্রকার বাঁয়ে হাত কা খেল হয়ে দাঁড়িয়েছে। সাধারণের মধ্যে থেকেই অনন্য হয়ে ওঠার সহজ প্ল্যাটফর্ম এখন নেটদুনিয়া। একবার নজর কাড়তে পারলেই কেল্লা ফতে। ভিড়ের মধ্যে আলাদা হয়ে যাওয়া এমনই কয়েকজনকে মনে করিয়ে দেবে এই প্রতিবেদন।

প্রিয়া প্রকাশ ভারিয়ের: এই তরুণীর পরিচয় এই মুহূর্ত আলাদা করে দেওয়ার কোনও প্রয়োজন নেই। সোশ্যাল মিডিয়া থেকে চায়ের আড্ডা, সর্বত্রই এখন প্রিয়ার চোখের চাহনির চর্চা। দক্ষিণী ছবির গানের একটি ছোট্ট দৃশ্য যে দেশ জুড়ে এভাবে সাড়া ফেলে দেবে, কে ভেবেছিল। ধনুশের ‘কোলাভেরি ডি’ গানটি কীভাবে ভাইরাল হয়েছিল মনে আছে? ঠিক তেমনই রাতারাতি বিখ্যাত হয়ে গিয়েছে মালয়ালম গানে প্রিয়ার প্রেমের চাহনি। ফলোয়ারের সংখ্যাও বাড়ছে হু হু করে।

আরশাদ খান : কে এই হট যুবক ? পাকিস্তানি চাওয়ালাকে প্রথম দেখায় এ কথাই সকলের মুখ থেকে বেরিয়েছিল। হট চাওয়ালা নামে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছিল ১৭ বছরের আরশাদ খান। রাতারাতি পাকিস্তানের ঘরের ছেলে হয়ে ওঠা তরুণ টক শোতেও ডাক পেয়েছিল। বাকিটা তো ইতিহাস। লুক বদলে রীতিমতো মডেল হয়ে উঠেছিল সে।

নেপালি তরকারিওয়ালি : নাম-ধাম কিছুই জানা নেই। সোশ্যাল সাইটে শুধু দুটো ছবি। আর তাতেই নেটিজেনদের রাতের ঘুম উড়ে গিয়েছিল। নেপালি চিত্রগ্রাহক রূপচন্দ্র মহার্জনের ক্যামেরাবন্দি হয়েছিল অচেনা সেই তরুণী। যে পরিচিতি পেয়েছিল নেপালি তরকারিওয়ালি হিসেবে।

ডক্টর মাইক : ইনস্টাগ্রামে একটা ছবি পোস্ট করতেই তরুণীদের হার্টথ্রবে পরিণত হয়েছিলেন ইনি। নিজেদের পছন্দের হিরোদের ছেড়ে আকর্ষণের কেন্দ্রে উঠে এসেছিলেন এই হ্যান্ডসাম ডাক্তার। ইনস্টাগ্রামে যাঁর ফলোয়ারের সংখ্যা এখন ২৫ লক্ষ ছাড়িয়েছে।

ঢিনচ্যাক পূজা : এই মহিলাকে অবশ্য অনেকেই মনে রাখতে চান না। তাঁর বেসুরো গলা থেকে গান শুনে বদহজমই বেশি হয়। কিন্তু তাতেই ইউটিউব কাঁপিয়েছিলেন ঢিনচ্যাক পূজা। প্রথম গানটি এতটাই জনপ্রিয় হয়ে ওঠে যে তিনখানা গানও গেয়ে ফেলেন। তবে তাকে গানের পর্যায়ে আদৌ ফেলা যায় কিনা, তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে। কিন্তু সোশ্যাল মিডিয়ার মহিমা এতই অপার, যে বিগ বস-এর মতো জনপ্রিয় শোয়েও ডাক পেয়ে গিয়েছিলেন তিনি।

পাঠকের মন্তব্য