৪২ দিন পর স্কুল ছাত্রী উদ্ধার; অপহরণকারী গ্রেফতার

অপহরণকারী ফিরোজ গাজী

অপহরণকারী ফিরোজ গাজী

পাইকগাছায় আলোচিত অপহরণ মামলার ৪২ দিন পর থানা পুলিশ স্কুল ছাত্রীকে উদ্ধার করে অপহরণ কারীকে গ্রেফতার করেছে। প্রযুক্তির মাধ্যমে মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই অনিষ মন্ডল ও অখিল মন্ডল রোববার সকালে রাজধানী ঢাকার ভাটরা থানা এলাকার একটি বাসা থেকে স্কুল ছাত্রী সখি দত্ত (১৫)কে উদ্ধার করে অপহরণকারী ফিরোজ গাজী ( ২৫) কে গ্রেফতার করে।

পুলিশ সোমবার ভিকটিমের শারীরিক পরীক্ষার জন্য ফরেনসিক বিভাগে ও ২২ ধারায় জবানবন্দীর জন্য খুলনা নারী শিশু দমন ট্রাইব্যুনালে পাঠিয়েছে।
পরিবারের অভিযোগ, গত ২১ এপ্রিল রাতে উপজেলার হরিঢালী ইউপি'র সোনাতনকাঠির কেষ্টপদ দত্তের ৯ম শ্রেনীতে পড়ুয়া মেয়ে  সখি দত্তকে একই গ্রামের মজু গাজীর ছেলে ফিরোজ গাজী অপহরণ করে নিয়ে যায়।

পিতা কেষ্টপদ দত্তের অভিযোগ হরিঢালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে আসা -যাওয়ার পথে  ফিরোজ তাঁর মেয়ে সখিকে উক্তাক্ত করতো। এ ঘটনায় ফিরোজের পরিবারকে জানালেও কোন প্রতিকার মেলেনি। সর্বশেষ ২১ এপ্রিল রাত ৯টার দিকে সখি স্থানীয় শিক্ষক রনজিত বাবুর কাছ থেকে প্রাইভেট পড়ে বাড়ীতে ফেরার পথে ফিরোজ তার বন্ধুদের সহয়তায় তাকে তুলে নিয়ে যায় বলে এমন অভিযোগ উঠে। এ ঘটনায় সখির পিতা কেষ্টপদ দত্ত বাদী হয়ে অপরহণকারী সোনাতনকাঠির ফিরোজ গাজী, আব্দুল্লাহ সরদার, মনিরুল সরদার, শেখ দাউদ, মঞ্জু গাজী তাঁর স্ত্রী ফরিদার বিরুদ্ধে ২৪ এপ্রিল থানায় মামলা করেন। পুলিশ বহু খোঁজাখুঁজির পর শেষ পর্যন্ত ঢাকা থেকে ভিকটিমের উদ্ধার সহ অপহরণকারীকে আটকের ঘটনায় ভিকটিমের পরিবার সহ এলাকায় স্বস্তি ফিরেছে। প্রযুক্তির মাধ্যমে স্কুল ছাত্রী উদ্ধার ও অপহরণকারীর গ্রেফতারের কথা জানিয়ে 

ওসি এমদাদুল হক শেখ বলেন,ভিকটিমের ফরেনসিক পরীক্ষা ও ২২ধারায় জবানবন্দীর জন্য নারী শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে পাঠানো হয়েছে।

পাঠকের মন্তব্য