নিখোঁজ ছাগলনাইয়ার মাদ্রাসার ছাত্রী কুমিল্লা থেকে উদ্ধার, গ্রেফতার-১

নিখোঁজ ছাগলনাইয়ার মাদ্রাসার ছাত্রী কুমিল্লা থেকে উদ্ধার, গ্রেফতার-১

নিখোঁজ ছাগলনাইয়ার মাদ্রাসার ছাত্রী কুমিল্লা থেকে উদ্ধার, গ্রেফতার-১

মোহাম্মদ এনায়েত উল্যাহ সোহেল, ছাগলনাইয়া ( ফেনী ) প্রতিনিধি : ছাগলনাইয়ার আলোচিত নিখোঁজ মাদ্রাসার ৮ম শ্রেনীর ছাত্রীকে কুমিল্লা জেলার চৌদ্দগ্রাম থানার তারাইল গ্রাম থেকে উদ্ধার করে ছাগলনাইয়া থানা পুলিশ। ১৫ জুন শনিবার  বিকেল আনুমানিক ৩ঘটিকার সময়ে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ছাগলনাইয়া থানার এসআই খুরশেদ নেতৃত্বে এএসআই আমজাদ হোসেন এ ভিকটিম উদ্ধার ও অপহরণকারীকে গ্রেফতার করেন। 

উল্লেখ্য গত ৪ জুন সকাল আনুমানিক ৬টার দিকে ইরাফিল ভিকটিমকে ভূলবাল বুজিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায়। এ বিষয়ে   ভিকটিমের মা বাদী হয়ে ছাগলনাইয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। মামলা সূত্রে জানা যায়, বিবাদী মোঃ ইস্রাফিল (২৮) কুমিল্লা জেলার লাঙ্গল কোড উপজেলার মান্নাবা গ্রামের মোঃ ইউসুফের ছেলে। বিবাদী মোঃ ইস্রাফিল উপজেলার দক্ষিণ মন্দিয়া আবদুর রহমান মুন্সী বাড়ী জামে মসজিদের মোয়াজ্জেম হিসেবে দায়িত্বরত ছিলেন। মোঃ ইস্রাফিল মোয়াজ্জেম হিসেবে দায়িত্বরত থাকার সুবাদে সমাজের মসল্লিদের বাড়ীতে বাড়ীতে গিয়ে খাবার খেতেন। তার সুবাদে ভিকটিকের সাথে পরিচয় হয়। রমজান মাসে শেষের দিকে বেতন উত্তোলন করার পর ৪ জুন সকাল আনুমানিক ৬টার দিকে বাদীনির মেয়েকে রাস্তায় একা পেয়ে বিবাহের প্রলোভন দেখিয়ে অজ্ঞাতস্থানে নিয়ে যায়। অনেক খুজাঁখুজি করার পর ভিকটিমকে না পেয়ে বিবাদীর কুমিল্লা বাড়ীতে যায় ভিকটিমের পরিবার কিন্তু মোঃ ইস্রাফিলের বাড়ীতে বিবাদী ও ভিকটিম উভয়কে না পাওয়ায় মোঃ ইস্রফিলকে বিবাদী করে ছাগলনাইয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়।

ছাগলনাইয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মেজবাহ্ উদ্দিন আহমেদ ও ওসি (তদন্ত) সুদ্বীপ রায় পলাশ’র নিকট এ ব্যাপারে জানান, আমরা ভিকটিমের মায়ের অভিযোগটি পাওয়ার পর বিবাদীর মোবাইল ফোন নম্বরটি ট্যাকিং করে বিবাদীর অবস্থান নিশ্চিত করি এবং লোকাল জনগণের তথ্যের ভিত্তিতে বিবাদীকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হই এবং বিবাদীর দেওয়া তথ্যের আলোকে ভিকটিমকে উদ্ধার করে ছাগলনাইয়া থানায় নিয়ে আসি। এখন বিবাদীকে ফেনী জেলা বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে কোটে ফেরণ করা হবে এবং ভিকটিমকে পরীক্ষা নিরীক্ষা করে আলামত সংগ্রহ করে তার মায়ের হাতে তুলে দেওয়া হবে।

পাঠকের মন্তব্য