জাতিকে পায়ের তলে, বুটের তলে পিষে দিচ্ছে এ সরকার

জাতিকে পায়ের তলে, বুটের তলে পিষে দিচ্ছে এ সরকার

জাতিকে পায়ের তলে, বুটের তলে পিষে দিচ্ছে এ সরকার

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগকে ইঙ্গিত করে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘আজ জাতির দুর্ভাগ্য। গণতন্ত্রের জন্য স্বাধীনতার যুদ্ধ হয়েছে। সেই জাতিকে পায়ের তলে, বুটের তলে পিষে দিচ্ছে এ সরকার’।

সোমবার বিকেলে ঠাকুরগাঁওয়ে দুপুরে হরিপুর উপজেলা বিএনপি আয়োজিত কর্মীসমাবেশে এ কথা বলেন।

কর্মীসমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মির্জা ফখরুল নিরপেক্ষ, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে আবারো নির্বাচন দাবি করে বলেন, আওয়ামী লীগ বন্দুকের জোরে ক্ষমতা দখল করে জনগণকে পরাজিত করেছে, বিএনপি পরাজিত হয়নি।  তিনি ‘আন্দোলন সৃষ্টি করে’ সরকারকে নতুন নির্বাচন দিতে বাধ্য করতে হবে বলেও জানান।

বিএনপি বর্তমান সংসদকে অবৈধ বলা ও অবৈধ সংসদে বিএনপির পক্ষে অংশ নেয়া প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমরা কোথাও কথা বলতে পারি না, সভা-সমাবেশ, মিটিং করতে পারি না, মিথ্যা মামলা দিচ্ছে। তাই কথা বলার সুযোগ নিতে দলীয় সিদ্ধান্তেই বিএনপির প্রতিনিধি সংসদে অংশ নিয়ে কথা বলছে। আজ সাংসদ সদস্য ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা, হারুন অর রশিদ কথা বলছে। আপনারা দেখছেন, গোটা দেশ জাতি দেখছে, শুনছে’।

তিনি আরো বলেন, ‘দেশে এই স্বৈরাচারী অবৈধ সরকারের আমলে বর্তমানে ২৬ লাখ মানুষ আসামি, যার মধ্যে বিএনপি’র আসামির সংখ্যা ১ লাখ, এ ছাড়াও আন্দোলন করতে গিয়ে গুম-খুন হয়েছে অসংখ্য নিরীহ মানুষ। আমার বিরুদ্ধে ৮৬টি ও ম্যাডামের বিরুদ্ধে ৩৪টি মিথ্যে মামলা দিয়েছে এই অবৈধ সরকার’।

‘দেশের মানুষের মুখে হাসি নেই’ উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘হাসি কার মুখে, লুটেরাদের মুখে। হাজার হাজার কোটি টাকা ঋণ নিয়ে বাজেট হয়েছে। বাজেটে টাকা বাড়ছে কার জন্য? এই টাকা লুটেরাদের পকেটে যাওয়ার জন্য’।

হরিপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি আসগর আলীর সভাপতিত্বে কর্মিসভায় বক্তব্য দেন জেলা বিএনপির সভাপতি তৈমুর রহমান, কৃষক দলের সভাপতি আনেয়ারুল ইসলাম, জেলা যুবদলের সভাপতি মাহাবুব হোসেন তুহিন, জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক মো. কায়েস প্রমুখ।

এরপর বিকেলে রানীশংকৈল ডিগ্রি কলেজে উপজেলা বিএনপি আয়োজিত এক কর্মী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন তিনি।

ঠাকুরগাঁও-৩ আসনের দলীয় নির্বাচিত সংসদ সদস্য জাহিদুর রহমানকে উদ্দেশ্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, তার প্রতি বিএনপির যথেষ্ট সহানুভূতি ছিল। কিন্তু তিনি ধৈর্য না ধরে তড়িঘড়ি করে সংসদে গিয়ে শপথ নিয়েছেন। তবে দলের শীর্ষ পর্যায়ের বৈঠকের পর তার বহিষ্কার আদেশ বিষয়ে বিবেচনা করা হবে।

রানীশংকৈল ডিগ্রি কলেজের শিক্ষক শাহ্ জাহান আলীর সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির সভাপতি তৈমুর রহমান, সহ-সভাপতি ওবায়দুল্লাহ হক মাসুদ, জেলা কৃষক দলের সভাপতি আনোয়ারুল ইসলাম, হোসেনগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আইনুল হক প্রমুখ।

এরপর সন্ধ্যায় তিনি পীরগঞ্জ উপজেলা বিএনপি আয়োজিত এক কর্মিসভায় যোগ দেন। চার দিনের সফরের দ্বিতীয় দিন সোমবার হরিপুর, রানীশংকৈল ও পীরগঞ্জ উপজেলায় কর্মী সমাবেশে অংশ নেন মির্জা ফখরুল।

পাঠকের মন্তব্য