তিন ‘গোল’ করেও ব্রাজিলের গোলশূন্য ড্র

তিন ‘গোল’ করেও ব্রাজিলের গোলশূন্য ড্র

তিন ‘গোল’ করেও ব্রাজিলের গোলশূন্য ড্র

কোপা আমেরিকায় স্বাগতিক ব্রাজিলের শুরুটা হয়েছে উড়ন্ত। প্রথম ম্যাচে বলিভিয়াকে ৩-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে ব্রাজিল। কাল দ্বিতীয় ম্যাচেও ভেনেজুয়েলার বিপক্ষে দুর্দান্ত ফুটবল খেলেছে নেইমারহীন ব্রাজিল। ৬৯ শতাংশ বলের দখল ধরে রেখে গোলবারে ১৩টি শট নিয়েছে ব্রাজিলিয়ানরা। তিনবার বল জালেও জড়িয়েছে। কিন্তু পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের মাঠ ছাড়তে হয়েছে গোলশূন্য ড্র নিয়ে!

ব্রাজিলের তিনটি গোলই বাতিল করে দিয়েছেন রেফারি। দুটি অফসাইডে। অন্য গোলটি বাতিলের পেছনে উপযুক্ত কোনো কারণ পরিষ্কার নয় কারো কাছেই। তারমধ্যে একটি প্রথমার্ধে এবং দ্বিতীয়ার্ধে দুটি গোল বাতিল হয়।

গত ম্যাচের মতো কালও ফিলিপে কুতিনহোকে মাঠের নেতা বানিয়ে পকিল্পনা সাজিয়েছিলেন ব্রাজিল কোচ তিতে। কোচের আস্থার প্রতিদান কালও দিয়েছেন বার্সেলোনা তারকা। রিচার্ডসন, রোবের্তো ফিরমিনোদের সঙ্গে আক্রমণভাগে বেশ জমছিল কুতিনহোর। মাঝমাঠ থেকে কাসেমিরোর সঙ্গে দারুণ একটা সেতুবন্ধনও তৈরি করেছিলেন। যার সুফল পাচ্ছিল ব্রাজিল।

একের পর এক আক্রমণে ভেনেজুয়েলাকে ব্যতিব্যস্ত করে রেখেছিল পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। কিন্তু ভাগ্যের ছোঁয়া না থাকায় শুধু গোলটাই পেল না। রেফারি তিন গোল বাতিল করেছেন, ব্রাজিলের ফিনিশিংও খুব একটা ভালো ছিল না। তা না হলে রেফারির তিন গোল বাতিলের দুঃখ চেপে থাকা লাগত না।

গোল বাতিলের প্রথম ঘটনা ম্যাচের ৩৯তম মিনিটে। রোবের্তো ফিরমিনো বল জালে জড়িয়েছিলেন। কিন্তু দানি আলভেসের পাস রিসিভ করার সময় প্রতিপক্ষ ডিফেন্ডারকে ফেলে দিয়েছিলেন বলে গোলের বদলে ফাউলের বাশি বাজান রেফারি। পরবরর্তী গোল বাতিলের শিকার গ্যাব্রিয়েল জেসুস। বদলি হিসেবে মাঠে নামার পনেরো মিনিট পর গোল করেন জেসুস। কিন্তু তাকে পাস দেওয়ার সময় ফিরমিনো ছিলেন অফসাইটে। ফলে গোল বাতিল করে দেন রেফারি।

ব্রাজিলের আগের ম্যাচের নায়ক ফিলিপে কুতিনহো গোল করেছিলেন ৮৭ মিনিটে। কিন্তু ডিএআরের সহায়তা নিয়ে এই গোলটিও বাতিল করে দেন রেফারি। শেষ পর্যন্ত দুর্দান্ত খেলেও জয় নিয়ে মাঠ ছাড়তে পারেনি ব্রাজিল। তবে জয় না পেলেও পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষেই আছে স্বাগতিকরা। দুই ম্যাচে চার পয়েন্ট নিয়ে ‘এ’ গ্রুপের শীর্ষে ব্রাজিল।

পাঠকের মন্তব্য