মিজানুর রহমান আজহারীকে ক্ষমা প্রার্থনার আহ্বান : নূরুল আজিম

মিজানুর রহমান আজহারী- নূরুল আজিম রনি

মিজানুর রহমান আজহারী- নূরুল আজিম রনি

চট্টগ্রামের বারো আউলিয়াকে নিয়ে বাজে মন্তব্যের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করুন।

কোন আউলিয়া কখনোই বলেননি পৃথিবী ধ্বংস হলেও চট্টগ্রাম ধ্বংস হবে না! তবে কেন আজহারী সাহেব বারো আউলিয়াকে উদাহরনসরুপ টেনে এনে তাদের নিয়ে বিদ্রুপ/বেয়াদপি করলেন ?

মিজানুর রহমান আজহারী সাহেবের প্রতি সম্মান রেখে বলতে চাই, কেয়ামতের দিন সবকিছুই ধ্বংস হবে, এটা আল্লাহর ঘোষনা যা আমরা সবাই জানি মানি। আপনি জামায়াতে ইসলামের মওদুদীবাদে বিশ্বাসী-খুব ভালো কথা। কিন্তু আপনি কোন ভাবেই চট্টগ্রামের ১২ আউলিয়াকে নিয়ে মশকরা-বদমায়েশি করতে পারেন না।

আপনার জানা আছে, এই উপমহাদেশে ইসলাম ধর্ম মানুষের কাছে নিয়ে এসেছিলেন ভারতের খাজা মাইনউদ্দিন চিশতি, নিজামউদ্দিন আউলিয়া। বাংলাদেশে সর্বপ্রথম সিলেট অঞ্চলে ইসলাম ধর্ম প্রচারে এসেছিলেন হযরত শাহজালাল (র:)। ঠিক তেমনি চট্টগ্রামের বিশাল এলাকায় ইসলাম ধর্ম প্রচারের জন্য বিশ্বের বিভিন্ন জায়গা থেকে প্রচুর আউলিয়া কেরাম এসেছিলেন। যাদের হাত ধরে আমরা ইসলাম ধর্ম পেয়েছি। জামায়াতে ইসলামীর প্রতিষ্ঠাতা আবুল আলা মওদুদীকে আপনার ভালো লাগতেই পারে!! কিন্তু তার মাধ্যমে আমরা ইসলাম পায়নি।

আপনি মিজানুর রহমান আজহারী বহু জ্ঞান গুনের অধিকারী হতে পারেন। কিন্তু আপনি কোনভাবেই বারো আউলিয়াকে নিয়ে বাজে মন্তব্য করতে পারেন না। ধর্ম প্রচারের নামে আপনার মনের কুপ্রবৃত্তিকে জায়েজ করতে পারেন না। আপনাকে জনসম্মুখে ক্ষমা চাওয়ার অনুরোধ করছি।

হযরত সুলতান বায়োজিদ বোস্তামী (রহ:), হযরত শাইখ ফরিদ (রহ:), হযরত বদর শাহ (রহ:), হযরত কাতাল শাহ (রহ:) হযরত শাহ মোহসেন আউলিয়া (রহ:), হযরত শাহ আমানত (রহ:), হযরত শাহ মাস্তান (রহ:), হযরত সাহপির (রহ:), হযরত শাহ ওমর (রহ:), হযরত শাহ বাদল (রহ:), হযরত শাহচান্দ আউলিয়া (রহ:), হযরত শাহ জায়েদ (রহ:) এর মতো বহু আউলিয়া কেরাম চট্রগ্রামে এসেছেন। আপনি তাদের জীবনী পাঠ করুন। ইসলাম ধর্মের জন্য যারা কাজ করেছেন তাদের নিয়ে বাজে মন্তব্য করে আপনি তাদের চেয়ে বড় হবার বৃথা চেষ্টা করছেন!

(কারো যদি মনে হয় আমি বক্তব্যের খন্ডিত অংশ প্রকাশ করেছি তাদের পুরা ওয়াজের লিংক দেয়া হবে। আর কেউ খারাপ ভাষায় মন্তব্য করলে তাকে ব্যান করা হবে)

ফেসবুক স্ট্যাটাস লিঙ্ক নূরুল আজিম রনি 

 

পাঠকের মন্তব্য