আ'লীগের উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্যপদ প্রত্যাহারের দাবি

মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ

মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ

বিএনপির সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ইনাম আহমেদ চৌধুরীর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্যপদ প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ। আওয়ামী লীগের এমন পদে এ ধরনের ব্যক্তিকে নিয়োগে মুক্তিযুদ্ধপ্রিয় জনগণ হতাশ হয়েছে বলেও মন্তব্য করেছেন সংগঠনটির নেতারা।

মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতিতে এক সংবাদ সম্মেলন করে ‘মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ’। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের আহ্বায়ক ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সমাজবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক আ ক ম জামাল উদ্দিন।

লিখিত বক্তব্যে অধ্যাপক জামাল উদ্দিন বলেন, দুঃসময়ের ত্যাগী ও পরীক্ষিত নেতাদের প্রত্যাখ্যান করে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা কিভাবে সদ্য দলে যোগ দেওয়া ইনাম আহমেদ চৌধুরীকে উপদেষ্টা করেছেন তা আমাদের বিস্মিত করেছে। অবিলম্বে এই নিয়োগ প্রক্রিয়া প্রত্যাহার করার দাবি জানাচ্ছি।

তিনি বলেন, ইনাম আহমেদ চৌধুরীর লিখিত গ্রন্থগুলোর পাতায় পাতায় মুদ্রিত রয়েছে আমাদের স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃতি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সীমাহীন অমর্যাদা আর আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনাকে খাটো করার অদম্য প্রয়াস।

“তিনি বাংলাদেশি জাতীয়তাবাদে বিশ্বাসী আর স্বাধীনতার ঘোষক হিসেবে দাবি করা জেনারেল জিয়ার আদর্শের উত্তরাধিকারী। আওয়ামী লীগে যোগদান করলেও কোনো বিচারেই তিনি আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্য হতে পারেন না” যোগ করেন অধ্যাপক জামাল উদ্দিন।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ ধীরে ধীরে স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা থেকে সরে যাচ্ছে এবং নিজেদের রাজনৈতিক আদর্শ ও চেতনার মৃত্যু ঘটিয়ে এখন ভাড়া করা স্বাধীনতা বিরোধী জামায়াত-বিএনপি ও হেফাজতের দেহে বেঁচে থাকতে চায়। ইনাম আহমেদ চৌধুরীকে উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্য করায় আমাদের সেই আশঙ্কা সত্যি হলো।

লিখিত বক্তব্যে আরও বলা হয়, প্রধানমন্ত্রী চীন সফর শেষে দেশে ফিরে চীনপন্থী একজন সাবেক কূটনীতিককে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্য করেছেন। এটা যদি চীনের সঙ্গে অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক সম্পর্ক আরও জোরদারের জন্য হয়, তবে নিশ্চয়ই তা প্রশংসা ও আশাবাদের ব্যাপার।

“কিন্তু তা যদি হয় প্রতিবেশী বন্ধু দেশের সঙ্গে ক্রমবর্ধমান অবনতিশীল সম্পর্কের বিকল্প ব্যবস্থা, তাহলে সেটা আমাদের রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে সুদূরপ্রসারী এক মহাভ্রান্তি হিসেবে পরিগণিত হবে” বলেন অধ্যাপক জামাল উদ্দিন।

সংবাদ সম্মেলনে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল, সাধারণ সম্পাদক আল মামুন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

পাঠকের মন্তব্য