ঢাকার রিক্সা গ্রামীণ অর্থনীতির চাকা, দেখুন পরিসংখ্যান 

ঢাকার রিক্সা গ্রামীণ অর্থনীতির চাকা

ঢাকার রিক্সা গ্রামীণ অর্থনীতির চাকা

বর্তমানে ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনে বৈধ ও অবৈধ মিলিয়ে ২ লক্ষের বেশি রিক্সা আছে। আলোচনার সুবিধার জন্য ধরে নেই, ঢাকায় রিক্সার সংখ্যা ২ লক্ষ। ২ শিফটের নিচে কোন রিক্সা চলে না এবং কোন রিক্সা বসে থাকেনা। প্রতি দিন একটি রিক্সা (২ শিপ্টে) ২জন রিক্সাচালক চালায়।

তাহলে মোট রিক্সাচালক: ২ লক্ষ রিক্সা x ২ জন করে চালক = ৪ লক্ষ জন চালক।একজন রিক্সা চালক গড়ে ঘন্টায় ১০০টাকা আয় করে। অতএব, সে দিনে (এক শিপ্টে ৮ ঘন্টা) ৮০০ টাকা আয় করে। ৩০০টাকা মালিকের ভাড়া আর প্রতিদিন মেসের থাকা ও খাওয়া বাবদ তার ১৫০ টাকা খরচ হয়। সে হিসেবে প্রতিদিন একজন রিক্সাচালকের হাতে জমা থাকে ৩৫০ টাকা। এক মাসে জমা থাকে (৩৫০ টাকা x ৩০ দিন) ১০,৫০০/- টাকা। রিক্সচালক এই টাকাটা কোথায় পাঠায়? নিশ্চয় সুইচ ব্যাংকে না! তার এ টাকা সে গ্রামে তার পরিবারের কাছে পাঠায়।

এবার আসুন দেখি ঢাকা থেকে রিক্সাচালকরা মাসে মোট কত টাকা গ্রামে পাঠায় : একজন রিক্সাচালক পাঠায় ১০,৫০০/- টাকা। অতএব, ৪ লক্ষ রিক্সাচালক মাসে গ্রামে পাঠায় (৪,০০,০০০ x ১০,৫০০) ৪,২০,০০,০০,০০০/- টাকা। হ্যা আপনি ঠিক দেখছেন। চার শ’ বিশ কোটি টাকা মাত্র। বছরে ৫হাজার ৪০ কোটি টাকা মাত্র।

এ টাকাগুলো পাঠানো হয় বিকাশের মাধ্যমে। আপনি কি জানেন রিক্সাচালকের কাছ থেকে বিকাশের বাৎসরিক আয় কত ? হাজারে ২০টাকা কমিশন হিসেবে মাত্র ১০০ কোটি ৮০ লক্ষ টাকা। অবাক হচ্ছেন ? তাছাড়া এ টাকা দিয়া ৪ লক্ষ শ্রমিকসহ পরিবারের জীবিকা চলে মোট ২০ লক্ষ মানুষের। 

আচ্ছা, এ টাকা দিয়ে কি কেনা হয় ? বিদেশী পণ্য ? না। এই টাকা দিয়ে কেনা হয় তাতের শাড়ি, দেশী সাবান, দেশী প্রসাধনী, দেশী স্যান্ডেল, দেশের মোটা চাল, দেশী লবন, স্থানীয় কৃষকের ফল, ফসল আর গ্রাম্য জেলের মাছ। ঢাকা থেকে পাঠানো ৫হাজার ৪০ কোটি টাকার পুরোটাই পাচ্ছে দেশীয় শিল্প এবং স্থানীয় কৃষক ও গ্রামের ব্যবসায়ীরা। গ্রামীণ অর্থনীতিতে এ টাকার অবদান ১০০% । অর্থনীতির এ চক্রটা আমার দেখানো হিসেবের থেকেও অনেক বড় ও সার্টিফাইড প্রোভেন।

অতএব, বিষয়টা মাথায় রাখতে হবে রিক্সা শুধু রিক্সা না; এটা গ্রামীণ অর্থনীতির চাকা। ৬৮ হাজার গ্রাম বাচলে বাচঁবে দেশ। তাই আধুনিক ঢাকা গড়ার জন্য রিকশা চালকদের বিকল্প রাস্তা/ব্যাবস্থা করে দেয়ার ঘোষনা দেয়ার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে-ধন্যবাদ।  (তথ্য সংগ্রহীত)

পাঠকের মন্তব্য