পাইকগাছায় বৃদ্ধি পাচ্ছে চুরি, ছিনতাই : শঙ্কিত এলাকাবাসী

পাইকগাছায় বৃদ্ধি পাচ্ছে চুরি, ছিনতাই ও মারামারী : শঙ্কিত এলাকাবাসী

পাইকগাছায় বৃদ্ধি পাচ্ছে চুরি, ছিনতাই ও মারামারী : শঙ্কিত এলাকাবাসী

পাইকগাছায় চুরি, ছিনতাই, মারামারী দিনকে দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। এ নিয়ে এলাকাবাসী উদ্বিগ্ন ও শঙ্কিত। সম্প্রতি, উপজেলায় আইন শৃঙ্খলা বিষয়ে থানা পুলিশের কিছু সাফল্য লক্ষ্য করা গেলেও আশঙ্ক জনক হারে চুরি, ছিনতাই, মারামারি ঘটনা বেড়েই চলেছে। পৌরসদর সহ উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় প্রায় এসব ঘটনা ঘটলেও আশু সমাধান মিলছে না। এ সব অপরাধী চক্রগুলো দীর্ঘ দিন আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে ফাঁকি দিয়ে এসব অপরাধমূলক কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে। 

প্রাপ্ত তথ্যানুসন্ধানে জানা যায়, গত ০৬/০৭/১৯ শনিবার গভীর রাতে ৩ টা-সাড়ে ৩ টার মধ্যে বাতিখালী হরিতলা মন্দিরের সামনে বিজয় সানার দু'তলা বাড়ির জানালা দিয়ে ঘুমানো অবস্থা তার মেয়ের একটি মোবাইল এবং গলা স্বর্ণের চেইন টান দিয়ে ছিড়ে নিয়ে গেছে দুষ্কৃতকারীরা। এছাড়া ৯ নং ওয়ার্ডে বুধবার গভীর রাতে বৌমার বটতলায় তাপস সানার দু'তলা বিল্ডিং এর জানালা দিয়ে ছিনতাইয়ের উদ্দেশ্য তার স্ত্রী'র হাতে ব্যবহৃত স্বর্ণের রুলি ধরে টানলে সাথে সাথে জেগে চিৎকার করলে সানসেট দিয়ে নেমে ছিনতাইকারী দ্রুত পালিয়ে যায়। কিছুদিন হলো গভীর রাতে সরল ৪ নং ওয়ার্ডের উজ্জ্বল মন্ডলের বাড়ির জানালা ভাঙ্গার শব্দ পেলে প্রতিবেশীরা কে কে শব্দ করে বেরিয়ে আসলে চোরেরা দ্রুত পালিয়ে যায়। 

বুধবার গভীর রাতে সরল গ্রামের ৪ নং ওয়ার্ড়ের নবপল্লীতে ব্যবসায়ী সোনাতন দাসের বাড়ির দু'তলা থেকে ১ টি মোবাইল ফোন চুরি করে নিয়ে যায়। এছাড়া বেশ কিছুদিন আগে দুপুরের দিকে বাসস্ট্যান্ডে মাদরাসার পিছনে সরল মাঝেরপাড়া মোড়স্থ রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময়ে মোটরসাইকেলে আরোহী, জনৈক সতী নামে এক মধ্য বয়সী নারীর কানের দুল টান দিয়ে ছিড়ে নিয়ে যায়। 

পাইকগাছায় ১৮ জুন রাতে উপজেলার বাঁকা ভবানীপুরস্থ ঘোষ বাড়ীর সামনে রাস্তায় গাছের গুড়ি ফেলে ডাক্তারদের লাঞ্ছিত সহ টাকা ও মোবাইল ফোন কেড়ে নেবার এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ করে, পুলিশী তদন্ত চলছে বলে জানিয়েছেন। অথচ কয়েক' শ গজ দূরে বাঁকা পুলিঁশ ফাঁড়ি। অতীতে এই পুলিঁশ ফাঁড়ির অস্ত্র লুটের ঘটনাও ঘটেছিল। আসামীরা ধরা ছোঁয়ার বাহিরে। এ রকম ঘটনা প্রায় কোথাও না কোথাও ঘটছে। এছাড়া প্রায় বোয়ালিয়া মোড় থেকে পিসি রায়ের ব্রীজ, পৌরসভার জিরোপয়েন্টস্থ শিববাটী ব্রীজ থেকে কাটাখালী বাজার, শিবাবটী ব্রীজ থেকে আলমতলা, বাজার ব্রীজ থেকে ভিলেজ পাইকগাছা মোড় সহ উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় প্রায় চুরি, ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটছে। সমাজে এর প্রভাব দিনকে দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। 

ফলে এলাকাবাসী সহ পথচারীরা সব সময়ে উদ্বিগ্ন, উৎকন্ঠায় থাকে। এই ভ্যাবসা গরমে রাতে ঘরের জানালা খুলে ঘুমাতে পারছে না বলে একাধিক ব্যক্তিরা জানান। এব্যাপারে থানা পুলিশ এলাকায় জিরোপয়েন্টে অস্থায়ী পুলিশ ফাঁড়ি স্থাপন, টহল ব্যবস্থা জোরদার সহ কয়েকটির পদক্ষেপের ঘটনায় সাফল্য লক্ষ্য করা গেলেও বেশীর ভাগ অপরাধীরা ধরা ছোঁয়ার বাহিরে। সুধীজনরা মনে করেন, অপরাধীরা ডিজিটাল প্রযুক্তি ব্যবহার, ধর্মীয় অনুসাশনের অভাব, অভিবাভকদের অসচেতনা সহ প্রশাসন ও সামাজিক অবক্ষয়ই দায়ী। এ ব্যাপারে ওসি (তদন্ত) রহমত আলী জানান, আইন শৃঙ্খলার রক্ষার ব্যাপারে প্রশাসন সব সময়ে জিরো টলারেন্সে রয়েছে। যদিও এসব বিষয়ে থানায় কেহ অভিযোগ করেনি। তবুও যারা এসব করছে তাদেরকে খুব শীঘ্রই আইনের আওতায় আনা হবে। 

পাঠকের মন্তব্য