মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত ইতিহাস সংরক্ষণ করা হবে : মন্ত্রী 

মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রী আ.ক.ম. মোজাম্মেল হক এমপি

মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রী আ.ক.ম. মোজাম্মেল হক এমপি

মুক্তিযোদ্ধা ও যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য সরকার সার্বিক সহায়তা অব্যাহত রেখেছে। মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত ইতিহাস সংরক্ষণ করতে স্থানীয়ভাবে রাজাকারদের তালিকা প্রস্তুত করে প্রকাশ করা হবে বলে জানিয়েছেন মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রী আ.ক.ম. মোজাম্মেল হক এমপি। 

বুধবার দুপুরে গাইবান্ধার পলাশবাড়ি, সাদুল্যাপুর, গোবিন্দগঞ্জ ও সুন্দরগঞ্জ উপজেলার পৃথক ৪টি মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সের উদ্বোধন শেষে স্থানীয় শহীদ মিনার চত্ত্বরে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি’র বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, নতুন প্রজন্ম যাতে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস সম্পর্কে জানতে পারে সেজন্য পাঠ্যপুস্তকে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। বদ্ধভূমি ও মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিস্তম্ভগুলো সংস্কার ছাড়াও সংরক্ষণ করা হচ্ছে। এছাড়াও এখন থেকে বিসিএস পরীক্ষায় ভাষা আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস নিয়ে ১'শ নম্বরের প্রশ্ন থাকবে। বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবর্ষ উদযাপন উপলক্ষে মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য প্রায় ১৫ লক্ষ টাকা ব্যয়ে বাড়ি নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে। তাই মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা হতে হবে স্বচ্ছ। সেখানে কোন বিতর্কের জায়গা থাকবেনা। 

আলোচনা পূর্বে প্রধান অতিথি এলজিইডি'র তত্ত্বাবধানে প্রায় ২ কোটি ২৪ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মিত পৃথক ৪টি উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স উদ্বোধন করেন। গাইবান্ধার ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক- রোখছানা বেগমের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি’র বক্তব্য রাখেন জাতীয়পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী, পুলিশ সুপার প্রকৌশলী আবদুল মান্নান মিয়া বিপিএম। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য সাবেক এমপি আলহাজ্ব তোফাজ্জল হোসেন সরকার, পলাশবাড়ি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব একেএম মোকছেদ চৌধুরী বিদ্যুৎ, সাদুল্যাপুর উপজেলা চেয়ারম্যান শাহরিয়ার খান বিপ্লব, পলাশবাড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আবু বকর প্রধান, সাধারণ সম্পাদক উপাধ্যক্ষ শামিকুল ইসলাম সরকার লিপন, সুন্দরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক টিআইএম মকবুল হোসেন প্রামাণিক, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার গৌতম চন্দ্র মোদক, পলাশবাড়ি উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার আব্দুর রহমান প্রমূখ। এসময় অন্যান্য উপজেলার নির্বাহী অফিসারগণ, বীরমুক্তিযোদ্ধাসহ উপজেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

পাঠকের মন্তব্য