যৌন হয়রানি রোধে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অভিযোগ বক্স 

যৌন হয়রানি রোধে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অভিযোগ বক্স 

যৌন হয়রানি রোধে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অভিযোগ বক্স 

শিক্ষার্থীদের যৌন হয়রানি ও বুলিং রোধে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অভিযোগ বক্স স্থাপনের নির্দেশ দিয়েছে শিক্ষা অধিদপ্তর। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যৌন হয়রানি প্রতিরোধ কমিটি বক্সে আসা অভিযোগগুলো গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করবে এবং দ্রুত ব্যবস্থা নিবে। বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে এ সংক্রান্ত চিঠি সব কলেজের অধ্যক্ষ এবং স্কুলের প্রধান শিক্ষকের কাছে পাঠানো হয়। উল্লেখ্য, সম্প্রতি মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন বন্ধে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের জন্য দেশের প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অভিযোগ বক্স বসানোর বিষয়টি নীতিমালায় সংযুক্ত করার পরামর্শ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

মাধ্যমিক শাখার পরিচালক অধ্যাপক ড. আবদুল মান্নান স্বাক্ষরিত চিঠিতে বলা হয়, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীরা নানা রকম হয়রানির শিকার হচ্ছে। বিশেষ করে যৌন হয়রানি ও বুলিংয়ের শিকার হচ্ছে তারা। কিন্তু, অধিকাংশ ক্ষেত্রে প্রাথমিক পর্যায়েই এসব বিষয়ে অভিযোগ দায়ের করার মত নির্ভরযোগ্য স্থান পায় না বলে বিপদগ্রস্থ হচ্ছে শিক্ষার্থীরা।

চিঠিতে আরো বলা হয়, শিক্ষার্থীরা যেন নির্বিঘ্নে ও নির্ভয়ে অভিযোগ দায়ের করতে পারে সেজন্য প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অভিযোগ বক্স স্থাপন করতে হবে। আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী গঠিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যৌন হয়রানি প্রতিরোধ কমিটি বক্সে পাওয়া অভিযোগগুলো গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করবে এবং বিধি অনুযায়ী দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

উল্লেখ্য, গত ১০ জুলাই মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন বন্ধে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের জন্য দেশের প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অভিযোগ বক্স বসানোর বিষয়টি নীতিমালায় সংযুক্ত করতে পরামর্শ দিয়েছেন হাইকোর্ট। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বুলিং নিরোধ কমিটির অগ্রগতি প্রতিবেদন সংক্রান্ত মামলার শুনানিকালে বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ পরামর্শ দেন। একইসঙ্গে বুলিং নিরোধ কমিটির নীতিমালার চূড়ান্ত প্রতিবেদনের তথ্য জানাতে ২২ অক্টোবর দিন ঠিক করেছেন আদালত।

পাঠকের মন্তব্য