এয়ারলাইনসে তৃতীয় ড্রিমলাইনার ‘গাঙচিল’ আসছে আগামীকাল

এয়ারলাইনসে তৃতীয় ড্রিমলাইনার ‘গাঙচিল’ আসছে আগামীকাল

এয়ারলাইনসে তৃতীয় ড্রিমলাইনার ‘গাঙচিল’ আসছে আগামীকাল

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসে তৃতীয় ড্রিমলাইনার ‘গাঙচিল’ আসছে আগামীকাল বৃহস্পতিবার। সর্বাধুনিক প্রযুক্তির তৃতীয় প্রজন্মের বোয়িং ৭৮৭-৮ মডেলের উড়োজাহাজটি বিকেলে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করবে। গাঙচিলকে নিয়ে বিমান বহরে উড়োজাহাজের সংখ্যা হবে ১৫টি।

বিমানের উপমহাব্যবস্থাপক তাহেরা খন্দকার বলেন, গাঙচিল বিমানের তৃতীয় ড্রিমলাইনার। দেশে পৌঁছার পর এই উড়োজাহাজকে ওয়াটার ক্যানন স্যালুটের মাধ্যমে স্বাগত জানানো হবে। গাঙচিলকে দেশে আনতে বিমানের একটি প্রতিনিধি দল সিয়াটলে বোয়িং কোম্পানির এভারেট ডেলিভারি অ্যান্ড অপারেশনস সেন্টারে কয়েক দিন আগে পৌঁছেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী ৭ আগস্ট গাঙচিলের উদ্বোধন করতে পারেন।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস ২০০৮ সালে মার্কিন উড়োজাহাজ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বোয়িং কোম্পানির সঙ্গে ১০টি নতুন উড়োজাহাজ কেনার চুক্তি করে। এগুলোর মধ্যে চারটি বোয়িং ৭৭৭-৩০০ ইআর, দুটি বোয়িং ৭৩৭-৮০০ ও দুটি বোয়িং ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার ইতিমধ্যে বিমান বহরে যুক্ত হয়েছে। সর্বশেষ ড্রিমলাইনারটি আগামী সেপ্টেম্বর মাসে দেশে আসতে পারে। বিমানের চারটি ড্রিমলাইনারের নাম বাছাই করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর মধ্যে আকাশবীণা, হংসবলাকা ২০১৮ সালে বাংলাদেশে এসেছে। চতুর্থ ড্রিমলাইনারের নাম রাজহংস।

বিমানের উপমহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) তাহেরা খন্দকার জানান, অন্য দুটি ড্রিমলাইনারের মতো গাঙচিলের আসনসংখ্যা ২৭১টি। এর মধ্যে বিজনেস ক্লাসে ২৪টি আর ইকোনমি ক্লাসে ২৪৭টি। বিজনেস ক্লাসের আসনগুলো ১৮০ ডিগ্রি পর্যন্ত রিক্লাইন্ড সুবিধা এবং সম্পূর্ণ ফ্ল্যাটবেড হওয়ায় যাত্রীরা আরাম ও স্বাচ্ছন্দ্যে ভ্রমণ করতে পারবেন। এ ছাড়া বিমানটিতে যাত্রীরা ইন্টারনেট ব্যবহার ও ফোন কল করার সুবিধাও পাবেন।

পাঠকের মন্তব্য