একটি ভয়ংকর গুজবের গল্প

একটি ভয়ংকর গুজবের গল্প

একটি ভয়ংকর গুজবের গল্প

একটা ট্রাক লাশ নিয়ে ঢাকা থেকে বগুড়ায় যাচ্ছিল। বঙ্গবন্ধু সেতু (যমুনা) অতিক্রম করতেই পথের মধ্যে ট্রাক ড্রাইভার চায়ের নেশা পেয়ে বসলো।  ঠিক সিরাজগঞ্জের মাঝামাঝিতে ঐ ট্রাকটি থামিয়ে ড্রাইভার ও হেলপার চা খেতে নামল।

আরামে দোকানে বসে চা খাচ্ছে ড্রাইভার ও হেল্পার। 

অপরদিকে এক লোক বাড়ী ফিরতে গিয়ে অনেক রাত হয়ে যাওয়ায় তারা লোকাল গাড়ি না পেয়ে মহাসড়কের পাশেই গাড়ির অপেক্ষা করছিল। 

এই লোকটি রাস্তার পাশে ট্রাকটি থামতে দেখে- ভাবলেন এই ট্রাকটি খালি, ড্রাইভারকে না দেখিয়ে উঠে পড়ি।  যেমন ভাবনা তেমনি কাজ, চুপিসারেই লোকটি উঠে পড়লো ট্রাকে। ট্রাকে উঠে লাশটির ওপরে বসে পড়ল।

কারন, অন্ধকারে কিছুই দেখা যাচ্ছিল না। 

অতঃপর ট্রাকের ড্রাইভার & হেলপার চা খাওয়া শেষ করে গাড়ি চালিয়ে যাচ্ছিল।

কিচ্ছুক্ষণ পর ট্রাকে বসা লোকটা একটা সিগারেট ধরে মনের সুখে টানতে লাগলো। 
হঠাৎ হেলপার দেখলো পিছনে লাশটা বসে সিগারেট টানছে !  

হেলপার ভয়ে ভয়ে বলল : ওস্তাদ, ওস্তান গাড়ি থামান।

ওস্তাদ : কেন ? 

হেলপার : পিছনে দেখেন, লাশটা বসে সিগারেট টানছে !   

ওস্তাদ : আরে... বেটা, এইটা কেমনে হয় ?  

হেলপার : দেখেন না... ওস্তাদ, আমি ভাগলাম ! এবার দুইজনে (ড্রাইভার ও হেলপার) গাড়ি থেকে নামলো দেখার জন্য যে, আসলে ব্যাপারটা কি ? 

ট্রাক ড্রাইভার ও হেলপার-কে গাড়ি থেকে নামতে দেখেই লাশের ওপর বসে থাকা লোকটা সিগারেট টানতে টানতে বলে উঠলেন - 

কিরে গাড়ি থামালি কেন ? 

এই শুনেই ট্রাক ড্রাইভার বলল, এবার কাম সারছে। অতঃপর দুইজনে মিলে দিল 'চিতা' দৌড় ।     

এদিকে ট্রাক ড্রাইভার ও হেলপারকে দৌড়াতে দেখে লাশের ওপর বসে থাকা লোকটা ভাবলো -

মনে হয় কোনো সমস্যা হইছে; নইলে ওরা দৌড় দিল কেন ? 

শেষমেশ সেও ওদের পিছন পিছন দিলো দৌড়। সেসময় হেলপার পিছনে তাকাইয়া দেখে লাশটা ওদের পিছনে দৌড়াইতেছে...। 

হেলপার বলল : ওস্তাদ, আজ আর রক্ষা নেই। ঐ দেখুন, লাশটাও আমাদের পিছনে পিছনে দৌড়াচ্ছে। তাড়াতাড়ি জান বাঁচাইয়া ভাগেন ওস্তাদ; তাড়াতাড়ি ভাগেন।

(বর্তমানে আমাদের দেশের মানুষগুলো ঠিক এমনই হয়ে গেল। না জেনে, না বুঝে হুজুগে ছেলে ধরা আখ্যা দিয়ে রাস্তায় পিটিয়ে মানুষ হত্যা করছে। এটা জঘন্য অপরাধ।)

পাঠকের মন্তব্য