১০ বছরে সুইজারল্যান্ড নয় বাংলাদেশের সমান হয়ে দেখান

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন

আজ শনিবার দুপুর ২ টায় সিলেট ঐতিহাসিক রেজিষ্ট্রারি মাঠে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ সিলেট মহানগর শাখার ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলন উদ্বোধন করেন যুবলীগ চেয়ারম্যান মোহাম্মাদ ওমর ফারুক চৌধুরী, প্রধান অতিথি পরারাষ্ট্র মন্ত্রী ড. একে মোমেন, প্রধান বক্তা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক মো: হারুনুর রশীদ, বিশেষ অতিথি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের সদস্য বদর উদ্দিন আহমদ কামরান, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত) লুৎফুর রহমান, মাহমুদ উস সামাদ কয়েছ এমপি, সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমেদ। 

এ সময় উদ্বোধনী বক্তব্যে যুবলীগ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী বলেন, যুবলীগ একটি সুশৃঙ্খল সংগঠন। এটি শৃঙ্খলা শেখার কারখানা। যুবলীগে ধান্দাবাজ-চাঁদাবাজদের স্থান নেই। এখানে মেধাবীদের জায়গা আছে। মেধাবীরাই যুবলীগে মূল্যায়িত হবে।

তিনি আরও বলেন, বাঙালী জাতি হিসেবে আমরা গর্বিত। শেখ হাসিনার মতো একজন রাষ্ট্রনায়ক পেয়েছি। তাঁর সুযোগ্য নেতৃত্বে বাংলাদেশ বিশ্বের বুকে একটি মডেল রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে।

যুবলীগ চেয়ারম্যান বলেন, ২০০৪ সালে খালেদা জিয়ার শাসনামলে জঙ্গি দেখেছি। আওয়ামী লীগের শাসনামলে তার বিদায় দিয়েছে। জাতীসংঘ জঙ্গীবাদ মোকাবেলায় বাংলাদেশকে মডেল দেশ হিসেবে সীকৃতি দিয়েছে। 

যুবলীগ চেয়ারম্যান আরও বলেন, আওয়ামী লীগ সরকারের উন্নয়নকে বাধাগ্রস্ত করতে দেশ বিরোধীরা বিভিন্ন গুজব সৃষ্টি করছে। দেশের জনগণ গুজবের বিরুদ্ধে স্বোচ্ছার হচ্ছেন। কানে গুজব ; হাতে আইন। এটা চলতে দেওয়া যায় না। এর মোকাবিলা করতে জনগণ ও প্রশাসন প্রস্তুত রয়েছে।

যুবলীগ নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আমি নেতা; আমি বক্তা, শ্রেষ্টত্ব প্রমাণের এ লড়াই আজ থেকে শেষ করতে হবে। গোলমাল আর গ্রুপিং রাজনীতি পরিহার করে মানুষের মন জয় করতে হবে। যুবলীগের প্রত্যেক নেতাকর্মীর মধ্যে ছাড় দেওয়ার মানসিকতা থাকতে হবে। যুবলীগে কোনো আত্ম কোন্দল থাকবে না। আজ থেকে শপথ নিতে হবে। নিজেদের মধ্যে আত্ম কোন্দল দূর করে রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করব।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, বিশ্বের ৫টি অর্থনীতির প্রবৃদ্ধির দেশের মধ্যে বাংলাদেশ সম্ভবনাময় একটি অর্থনীতির দেশ। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ আজ প্রতিবেশী রাষ্ট্র সমূহ থেকে অনেক এগিয়ে। দেশ এগিয়ে যাওয়ার পেছনে যুব সমাজের অনেক ত্যাগ আছে। 

তিনি আরোও বলেন, একটি দেশের যুব সমাজ পারে দেশকে উন্নত রাষ্ট্রে পরিনত করতে। যুব নেতৃত্বের মাধ্যমে দেশকে আরও এগিয়ে নিতে যুব সমাজকে ক্ষমতায়ন করতে হবে। পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, প্রতিটি নেতৃত্বে বৈষম্য দূর করে প্রযুক্তি শিক্ষার মাধ্যমে মানুষের অধিকার নিশ্চিত করতে হবে। 

ড. মোমেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে চ্যালেঞ্জ করে তিনি বলেন, আগামী ১০ বছরে সুইজারল্যান্ড নয় বাংলাদেশের সমান হয়ে দেখান। কারন বাংলাদেশ যেভাবে দ্রুত গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে তাতে বাংলাদেশের সমান হতে আরোও ৫০ বছর লাগবে।

সিলেট মহানগর যুবলীগের আহ্বায়ক আলম খান মুক্তির সভাপতিত্বে ও যুগ্ম আহ্বায়ক মুশফিক জায়গীরদার ও সেলিম আহমদ সেলিম’র সঞ্চালনায় আরও বক্তব্য রাখেন যুবলীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য শহীদ সেরনিয়াবাত, মুজিবুর রহমান চৌধুরী, মো. ফারুক হোসেন, মাহবুবুর রহমান হিরন, ড. আহমদ আল কবির, আবদুস সাত্তার মাসুদ, মো. আতাউর রহমান, অ্যাডভোকেট বেলাল হোসেন, অ্যাডভোকেট মোতাহার হোসেন সাজু, মো. আলী খোকন, যুগ্ম সম্পাদক মহি উদ্দিন আহমেদ মহি, সুব্রত পাল, সাংগঠনিক সম্পাদক মুহাম্মদ বদিউল আলম, ফজলুল হক আতিক, ফারুক হাসান তুহিন, সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য কাজী আনিসুর রহমান, মিজানুল ইসলাম মিজু, শফিকুল ইসলাম, শ্যামল কুমার রায়, এনআই আহমেদ সৈকত প্রমুখ।

পাঠকের মন্তব্য