ধর্ষণের মামলা খারিজ : এবার মুখ খুললেন নেইমার  

নেইমার  

নেইমার  

নেইমারের বিপক্ষে ধর্ষণের মামলা গত জুলাইয়ে খারিজ করে দিয়েছে সাও পাওলো পুলিশ। পরশু কৌঁসুলিদের আবেদনের প্রেক্ষিতে মামলাটি খারিজ করেছে ব্রাজিলের আদালতও। পর্যাপ্ত তথ্য-প্রমাণ না থাকায় মামলার কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করা হয়। নেইমার এতে স্বস্তি পেলেও জানিয়েছেন, জীবনের এ অধ্যায় তিনি কখনোই ভুলতে পারবেন না।

ব্রাজিল পুলিশের নথি অনুযায়ী, গত মে মাসে প্যারিসে নাহিলা ত্রিনদাদে নামে এক নারীকে ধর্ষণের অভিযোগ ওঠে নেইমারের বিরুদ্ধে। ঘটনার শিকার সেই নারী নিজেই অভিযোগ করেন। তবে শুরু থেকেই এ অভিযোগ অস্বীকার করে এসেছেন নেইমার। তাঁর বাবাও দাবি করেছিলেন, ঘটনাটি ‘সাজানো’ আর অভিযোগকারী নারীর সম্মতিতেই তাঁর সঙ্গে যৌন সম্পর্ক ছিল নেইমারের। সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার পর সে নারীর আইনজীবী এখন নেইমারকে ‘ব্ল্যাকমেল’ করার চেষ্টা করছেন।

মামলা খারিজ হয়ে যাওয়ার পর কাল ইনস্টাগ্রামে এ নিয়ে একটি পোস্ট করেন নেইমার। সেখানে পিএসজি তারকা লেখেন, ‘এটি আমার জীবনের এমন এক অধ্যায় হয়ে থাকবে যা কখনো ভুলতে পারব না। এর অনেক কারণ আছে। প্রধান কারণটা হলো, আমার এবং আমার পরিবার আর যারা আমাকে জানে তাদের যে ক্ষতিটা হয়েছে। এখন থেকে সচেতন থাকব, এটা বলব না যে খুশি হয়েছি কিন্তু স্বস্তি লাগছে। তবে ক্ষতটা থাকবে—তাতে আমি মনে রাখতে পারব, মানুষ ভালো কাজের পাশাপাশি কতটা খারাপ হতে পারে!’

ধর্ষণের অভিযোগ ওঠার পর বেশ কঠিন সময় পার করেছেন ব্রাজিলিয়ান এ তারকা। চারপাশ থেকে সমালোচনা ধেয়ে আসায় গত মে মাসেই নিজের ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে সেই নারীর সঙ্গে হোয়াটসঅ্যাপ বার্তা নিয়ে হাজির হয়েছিলেন নেইমার। সাত মিনিটের ভিডিওতে নেইমার দেখান, নাহিলা ত্রিনদাদের সঙ্গে হোয়াটসঅ্যাপে তাঁর কী কী কথাবার্তা হতো। তবে সেই নারীর সম্মতি ছাড়াই এভাবে হোয়াটসঅ্যাপ বার্তা ফাঁস করে আইন ভঙ্গ করেছিলেন নেইমার। এ জন্য পুলিশ তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদও করেছিল।

ইনস্টাগ্রামে সেই কঠিন সময় নিয়ে নেইমার লেখেন, ‘হ্যাঁ, আমার সবকিছু ভেঙে পড়েছিল...তবে জুজুৎসু কিংবদন্তিতে একটা কথা আছে “ভেঙে পড়াটা অনেকের কাছে সবকিছুর শেষ তবে আমাদের জন্য এটা কেবল শুরু।” এটা শুধু আমার জন্য নয় বরং এমন মিথ্যা অভিযোগে ভুক্তভোগীদের জন্যও নতুন শুরু হোক আর বিশেষ করে সেসব নারীদের জন্য যারা এ ধরনের ঘটনার শিকার হয়েছেন। সবকিছুর জন্য সৃষ্টিকর্তাকে ধন্যবাদ।’

পাঠকের মন্তব্য