পাইকগাছায় ঈদের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন : চলছে শেষ মুহুর্তের কেনাকাটা

পাইকগাছায় ঈদের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন

পাইকগাছায় ঈদের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন

খুলনা জেলার পাইকগাছায় পবিত্র ঈদ-উল-আযহার সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে এবং উৎসবমুখর পরিবেশে ঈদ-উল-আযহা উদযাপন এবং কঠোর নিরাপত্তার ব্যবস্হা নেওয়া হবে বলে  উপজেলা প্রশাসন ও পৌর কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে। আগামী সোমবার সকাল ৮টায় পৌরসভার কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠে প্রধান ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এদিকে, কোরবানীর পশুসহ অন্যান্য কেনাকাটায় ব্যস্ত সময় পার করছে অনেকেই। ঈদে ঘরে ফেরা মানুষ সহ সাধারণ মানুষের অভিযোগ, পৌর সদরের প্রধান সড়কে দু'পাশে যত্রতত্র  বাস রাখায় যাতয়াতের চরম দুর্ভোগে পড়তে হচ্ছে। 
 
উল্লেখ্য, আগামী সোমবার বিপুল ত্যাগ ও ধর্মীয় ভাবগাম্ভির্য্যের মধ্য দিয়ে সারা দেশে উদযাপন হতে যাচ্ছে পবিত্র ঈদ-উল-আযহা। সারা দেশের ন্যায় অত্র উপজেলাও যথাযথ মর্যাদায় ও উৎসবমুখর পরিবেশে ঈদ-উল-আযহা উদযাপন হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন স্থানীয় প্রশাসন সহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। 

ঈদ-উল-আযহা উপলক্ষে এলাকাবাসীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আক্তারুজ্জামান বাবু, সাবেক সংসদ সদস্য এ্যাডঃ শেখ মোঃ নুরুল হক, এ্যাডঃ সোহরাব আলী সানা, উপজেলা চেয়ারম্যান গাজী মোহাম্মদ আলী, উপজেলা নির্বাহী অফিসার জুলিয়া সুকায়না, পৌর মেয়র সেলিম জাহাঙ্গীর ও ওসি এমদাদুল হক শেখ,উপজেলা ভাইস- চেয়ারম্যান শিয়াবুদ্দীন ফিরোজ বুলু ও লিপিকা ঢালী।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার জুলিয়া সুকায়না জানান, ঈদ-উল-আযহার সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। তিনি এবার কর্মস্থলেই ঈদ উদযাপন করবেন। পৌর প্যানেল মেয়র এস,এম,ইমদাদুল হক জানান, সোমবার সকাল ৮টায় পৌরসভার কেন্দ্রীয় ঈদগাহ (সিনিয়র মাদরাসা) মাঠে প্রধান ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। 

অন্যদিকে, জমঈয়তে আদলে হাদীসের প্রধান এবং মহিলা ঈদের জামাত সকাল সাড়ে ৭টায় ঘোষাল-বান্দিকাটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ঈদগাহ মাঠে অনুষ্ঠিত হবে। যাহা এটি অত্র এলাকায় সর্বপ্রথম অনুষ্ঠিত হবে।পৌর মেয়র সেলিম জাহাঙ্গীর ও ওসি এমদাদুল হক শেখ এবার কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠে ঈদের নামাজ আদায় করবেন বলে জানিয়েছেন। এদিকে, শেষ মুহুর্তের কেনাকাটায় ব্যস্ত সময় পার করছেন অনেকেই। ইতোমধ্যে বেশির ভাগ মানুষের কোরবানীর পশু কেনা হলেও এখনও অনেকেই কিনতে পারেননি। যাহারা কিনতে পারেননি  তাদের হাতে এখনও এক দিন সময়  থাকায় এরই মধ্যে স্থানীয় পশু হাট থেকে কোরবানীর পশু কেনার কাজ সম্পন্ন হয়ে যাবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।

বিগত বছরের চেয়ে এ বছর পশু হাটগুলোতে উন্নত জাতের দেশীয় প্রজাতির গরু বেশি বিক্রি হয়েছে। বিশেষ করে, ৩৫ - ৫০ হাজার থেকে ১ লাখ ২০ হাজর টাকা মূল্যের গরুর চাহিদা এবং বিক্রয় অনেক বেশি হচ্ছে। কোরবানীর পশুর পাশাপাশি নতুন পোশাক ও ঈদ সামগ্রি কেনাকাটায় শেষ মুহুর্তে ব্যস্ত সময় পার করছেন ক্রেতা-বিক্রেতাসহ বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষ। শেষ মুহুর্তে পছন্দের পোশাক কিনতে পেরে খুঁশি বলে জানিয়েছেন এক ঝাক কোমলমতি কিশোর- কিশোরী।বিগত ঈদের ন্যায় এবারের ঈদেও জমজমাট কেনাবেচা হয়েছে বলে জানিয়েছেন পৌর সদরের ফজলু ক্লথ স্টোরের স্বত্তাধিকারী মোঃ ফজলুর রহমান,দীপ্তি ক্লথ স্টোরের স্বত্তাধিকার অমরেশ মন্ডল সহ অন্যান্য ব্যবসায়ীবৃন্দ।

অপরদিকে, দেশের বিভিন্ন স্থানে কর্মরত ঘরে ফেরা মানুষ এলাকায় এসে যাতায়াতে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন বলে জানিয়েছেন। ঘরে ফেরা অনেকেই অভিযোগ করেন পৌর সদরের জনগুরুত্বপূর্ণ প্রধান সড়কের জিরো পয়েন্ট থেকে তেল পাম্প পর্যন্ত সড়কের পাশ দিয়ে বাস রাখায় যানজট সৃষ্টি হয়েছে। ফলে প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনা। এছাড়া বাজারে কোন ভ্যান স্টান্ড না থাকায় জিরো পয়েন্ট থেকে সার্জিক্যাল ক্লিনিক পর্যন্ত যানজট লেগেই আছে। ঈদের ব্যস্ততম সময়ে প্রধান সড়ক থেকে বাসগুলো সরিয়ে নেয়ার ও ট্রাফিকপুলিশ দেওয়ার জোর দাবী এলাকাবাসী জানিয়েছেন।

পাঠকের মন্তব্য