তরুণীদের প্রলোভন দেখিয়ে দেহব্যবসা : কংগ্রেসের নেত্রী আটক 

তরুণীদের প্রলোভন দেখিয়ে দেহব্যবসা : কংগ্রেসের নেত্রী আটক 

তরুণীদের প্রলোভন দেখিয়ে দেহব্যবসা : কংগ্রেসের নেত্রী আটক 

থানা থেকে ঢিল ছোঁড়া দূরত্বে মধুচক্রের পর্দাফাঁস। হাতনাতে ধরা পড়লেন মহিলা তৃণমূল কংগ্রেসের প্রাক্তন ব্লক সভানেত্রী! ঘটনায় শোরগোল পড়েছে মালদহে।

ভারতের মালদহ শহরের সিঙ্গাতলা এলাকায় ইংরেজ বাজার থানার কাছে দীর্ঘদিন ধরেই চলছিল মধুচক্র। গোপন সূত্রে খবর পায় পুলিশ। মঙ্গলবার রাতে পুলিশি অভিযানে হাতেনাতে ধরা পড়ে যায় একজন মহিলা, দুই তরুণী ও একজন যুবক। তদন্তকারীরা জানিয়েছেন, মালদহে শহরে এই মধুচক্রটি চালাত সরিতা মণ্ডল নামে এক মহিলা। জেলার বিভিন্ন  প্রান্ত থেকে কমবয়সী তরুণীদের প্রলোভন দেখিয়ে দেহব্যবসা নামত সে। শুধু তাই নয়, মালদহ জেলার গ্রামীণ এলাকায় একই কায়দায় সরিতা দেহ ব্যবসা চালাত বলে অভিযোগ। এমনকী, মালদহ শহরের যে এলাকায় অভিযান চালিয়ে মধুচক্রের হদিশ পেয়েছে পুলিশ, সেই সিঙ্গাতলায় আরও বেশ কয়েকটি বাড়িতেও দেহ ব্যবসা চলে বলে শোনা যাচ্ছে। গোটা বিষয়টি তদন্ত করে দেখছে পুলিশ।

কিন্তু কে এই সরিতা মণ্ডল? মালদহে গাজোলে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রথমসারির নেত্রী হিসেবে পরিচিত ওই মহিলা। বস্তুত, এক সময়ে গাজোল ব্লকে মহিলা তৃণমূল কংগ্রেসে সভানেত্রীও ছিল সরিতা। স্বাভাবিকভাবেই মধুচক্র চালানোর অভিযোগে তার গ্রেপ্তারি শোরগোল পড়েছে জেলার রাজনৈতিক মহলে। যদিও এই ঘটনা নিয়ে মুখ খুলতে চাননি মালদহের তৃণমূল নেতারা।

দিন কয়েক আগে দক্ষিণ দিনাজপুরের কুশমুণ্ডিতে তৃণমূলের উপ প্রধানের ফাঁকা বাড়িতে অভিযান চালিয়ে মধুচক্রের হদিশ পায় পুলিশ। ঘটনায় গ্রেপ্তার করা হয় এক সিভিক ভলান্টিয়ার ও তৃণমূল কংগ্রেস নেতা-সহ তিনজনকে। স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছিলেন, শাসকদলের উপ প্রধানের ফাঁকা বাড়িতে দীর্ঘদিন ধরেই মধুচক্র চলত। কিছু বলতে গেলে হুমকি দেওয়া হত। আর এবার মালদহে মধুচক্র চালানোর দায়ে ধরা পড়ল খোদ তৃণমূল কংগ্রেসের এক নেত্রী।

পাঠকের মন্তব্য