পাইকগাছায় গ্রাম আদালত কার্যক্রমে লস্কর ইউপি বিভাগীয় পর্যায়ে শীর্ষে

পাইকগাছায় গ্রাম আদালত কার্যক্রমে লস্কর ইউপি বিভাগীয় পর্যায়ে শীর্ষে

পাইকগাছায় গ্রাম আদালত কার্যক্রমে লস্কর ইউপি বিভাগীয় পর্যায়ে শীর্ষে

পাইকগাছায় বর্তমান সরকারের পরিকল্পনা স্বরুপ “কম খরচে, অল্প সময়ে” গ্রাম আদালতের বিচার কার্যক্রমে লস্কর ইউনিয়ন পরিষদ খুলনা বিভাগের শীর্ষে রয়েছে। আদালতের মামলা জট এড়াতে মানুষের বিচার সেবা পেতে এলাকার ছোট-খাটো বিরোধ মীমাংসায় গ্রাম আদালতের কার্যক্রম প্রশংসিত হয়েছে বলে জানা গেছে। 

ইউএনডিপি বাংলাদেশ ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের আর্থিক সহযোগিতায় স্থানীয় সরকার বিভাগ, স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় কর্তৃক বাস্তবায়িত গ্রাম আদালত সক্রিয় করণ (২য় পর্যায় প্রকল্প) কার্যকরণের অংশ হিসেবে ২০১৭ সালের এপ্রিল থেকে এ আদালতের কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। এতে দালাল-বাটপার ও প্রভাবশালীদের হস্তক্ষেপ ও ঝামেলা নেই, নেই দীর্ঘ সুত্রিতা। নাম মাত্র খরচে হচ্ছে আপোষ মিমাংসা। ইতোমধ্যে হয়রানী ছাড়া আদালতের বিচার প্রক্রিয়ায় সাধারণ মানুষের কাছে আস্থা অর্জন করেছে। এ বিষয়ে সরকারের ইচ্ছার কথা বলে লস্কর ইউপি চেয়ারম্যান কে.এম আরিফুজ্জামান তুহিন জানান, আন্তরিকতা ও স্বদিচ্ছা থাকলে মানুষের উপকার করা সম্ভব। 

তিনি বলেন, শুরু থেকে এ পর্যন্ত গ্রাম আদালতে ২শ ৩৫ টি অভিযোগের মধ্যে ২শ ৩১টি মামলার নিস্পত্তি হয়েছে এবং ৪ টি মামলা চলমান রয়েছে। আদালতের পেশকার বাবুল আক্তার বাবুল জানান, এ পর্যন্ত নিস্পত্তি যোগ্য মামলা হতে ক্ষতি পুরন হিসেবে ১৯ লক্ষ ৩০ হাজার ৬শ ৫৭ টাকা আদায় করে বিচার সেবা প্রত্যাশী পরিবারের হাতে তুলে দেয়া হয়েছে। তিনি আরোও বলেন, গ্রাম আদালতের কার্যক্রম সম্পর্কে প্রচার-প্রচারন সহ এলাকায় ২শ ৮০টি উঠোন বৈঠক করা হয়েছে।

পাঠকের মন্তব্য