মণিরামপুরে ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা ১০ বছরের একটি শিশু

মণিরামপুরে ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা ১০ বছরের একটি শিশু

মণিরামপুরে ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা ১০ বছরের একটি শিশু

যশোরের মণিরামপুরে ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা ১০ বছরের একটি শিশুটিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শিশুটি বর্তমানে ৮ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। বুধবার হঠাৎ অসুস্থ হলে তাকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। উপজেলা পল্লী দারিদ্র্য বিমোচন ফাউন্ডেশনের সহকারী কর্মকর্তা কিবরিয়া শিশুটিকে একাধিকবার ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ রয়েছে।

যশোর জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাক্তার আরিফ আহমেদ জানান, অন্তঃসত্ত্বা মেয়েটি এখনও শিশু। এ কারণে তার অবস্থা বেশ ক্রিটিক্যাল। এজন্য তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে। কিন্তু অর্থের অভাবে স্বাজনরা তাকে নিয়ে যেতে পারছে না। আগামী ১৭ অক্টোবর ডেলিভারির তারিখ রয়েছে। এর আগেও হতে পারে। তবে মেয়েটির বয়স কম হওয়ার কারণে স্বাভাবিকভাবে সন্তান প্রসব হওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম।

স্বজনরা জানান, পল্লী দারিদ্র্য বিমোচন ফাউন্ডেশনের উপজেলার সহকারী কর্মকর্তা হিসেবে যোগদান করে কিবরিয়া মণিরামপুরে একটি ভাড়া বাড়িতে বসবাস করতেন। তার বাড়িতে কাজের মেয়ে হিসেবে ওই শিশুটি থাকত। চলতি বছরের শুরু থেকে বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে তাকে দিনের পর দিন ধর্ষণ করেন কিবরিয়া। এতে মেয়েটি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। বিষয়টি জানতে পেরে মেয়েটির স্বজনরা আইনের আশ্রয় নেন। তখন পুলিশ কিবরিয়াকে গ্রেফতার করে। বর্তমানে তিনি কারাগারে আছেন। আর মামলাটি বিচারাধীন।

পুলিশ বলছে, এ ব্যাপারে থানায় মামলা হয়েছে। আসামি গ্রেফতার। এখন ডিএনএ টেস্ট করতে হবে।

এদিকে মামলা বিচারাধীন থাকায় শিশুটির গর্ভপাত ঘটানো যায়নি বলে জানিয়েছে তার পরিবার। ফলে জীবন-মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছে ভুক্তভোগী শিশুটি। স্বজনরাও রয়েছেন খুব চিন্তায়।

পাঠকের মন্তব্য