প্রকাশ্যে এক নারী আইনজীবীকে মারধোর করার অভিযোগ

প্রকাশ্যে এক নারী আইনজীবীকে মারধোর করার অভিযোগ

প্রকাশ্যে এক নারী আইনজীবীকে মারধোর করার অভিযোগ

এবার তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রকাশ্যে এক নারী আইনজীবীকে মারধোর করার অভিযোগ উঠেছে পটুয়াখালীর আলোচিত গলাচিপা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহিন শাহ্ এর বিরুদ্ধে।

এছাড়া অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করে তাকে বিবস্ত্র করার হুমকি দেয়া হয়। এর আগে তার শ্বশুরকে মোবাইল ফোনে গালাগালি ও পায়ের রগ কাটা এবং পা ভেঙ্গে দেয়ার হুমকি দেন ওই চেয়ারম্যান। বৃহস্পতিবার দুপুর সোয়া দুইটার দিকে গলাচিপা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

এর আগে সংবাদ প্রকাশের জেরে দৈনিক যুগান্তরের পটুয়াখালী প্রতিনিধিকে দেখে নেবার হুমকি দিয়েছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান শাহিন শাহ।

হামলার শিকার আইনজীবীর শ্বশুর গলাচিপা উপজেলার কলাগাছিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান দুলাল চৌধুরী অভিযোগ করেন, বৃহস্পতিবার তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে উপজেলা চেয়ারম্যান ফোন করে তাকে উপজেলা চত্বরে যেতে বলেন।

এসময় তিনি শারীরিক ভাবে অসুস্থ বলে জানিয়ে উপজেলা চত্বরে যেতে আপত্তি করেন। এতে উপজেলা চেয়ারম্যান তেলে বেগুনে জলে উঠে অকথ্য ভাষায় চেয়ারম্যানকে গালমন্দ করেন। এর প্রতিবাদ করলে শাহিন শাহ আরও ক্ষিপ্ত হয়ে হাত-পায়ের রগ কাটা এবং ভেঙ্গে দেয়ার হুমকি দিয়ে ফোনের লাইনটি কেটে দেয়।

পরে ঘটনাক্রমে গলাচিপা উপজেলা পরিষদ চত্বরে উপস্থিত হয় ইউপি চেয়ারম্যানের পুত্রবধূ নারী আইনজীবী উম্মে আসমা আখি। এসময় উপজেলা চেয়ারম্যান আখিকে বলে-তোর শ্বশুরে কলাগাছিয়া ইউনিয়ন পরিষদের ২ নং ওয়ার্ডের লতিফ গংদের পুকুরের মাছ বিষ দিয়ে মারছে। তুই তার জরিমানা দিবি। তার উত্তরে আখির শ্বশুর ঢাকায় চিকিৎসাধীন ছিল এবং বুধবার রাতে বাসায় আসছে বলে জানালে তাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করলে আখি প্রতিবাদ করে।

এতে উপজেলা চেয়ারম্যান ক্ষিপ্ত হয়ে প্রকাশ্যে আখিকে চর-থাপ্পড়,কিল-ঘুষি এবং লাথি মারেন। একপর্যায় উপস্থিত লোকের সামনে আখিকে বিবস্ত্র এবং মানহানি করার হুমকি দেয়। গলাচিপা উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহ মোঃ রফিকুল ইসলাম বলেন, লোকমুখে ঘটনা শুনে ইউপি চেয়ারম্যান ও তার পরিবারকে নিরাপদে থাকার জন্য বলা হয়েছে এবং তাদের সার্বিক নিরাপত্তা দেয়া হবে বলে।

অপরদিকে অভিযোগ অস্বীকার করে উপজেলা চেয়ারম্যান শাহিন শাহ বলেন-মাছ মারা নিয়ে একটু ঝামেলা হয়েছে আর কিছুই নয়। এর আগেও ইউপি চেয়ারম্যান মাছ মারছে।

পাঠকের মন্তব্য