সুন্দরগঞ্জে প্রেমিকের হাতে লাঞ্ছিত প্রেমিকার আত্মহত্যা

সুন্দরগঞ্জে প্রেমিকের হাতে লাঞ্ছিত প্রেমিকার আত্মহত্যা

সুন্দরগঞ্জে প্রেমিকের হাতে লাঞ্ছিত প্রেমিকার আত্মহত্যা

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় প্রেমিকের হাতে লাঞ্ছিত হওয়ার অপমান সইতে না পেরে ইয়াসমিন আক্তার (১৪) নামের এক স্কুলছাত্রী আত্মহত্যা করেছে। 

পারিবারিক সুত্রে জানা যায়, উপজেলার তারাপুর ইউনিয়নের চাচিয়া মীরগঞ্জ গ্রামের ইয়াসিন আলীর মেয়ে ইয়াসমিন আক্তার পার্শ্ববর্তী গ্রাম নওহাটি চাচিয়া গ্রামের হোসেন আলীর পুত্র আলামিন মিয়ার (২০) সাথে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। গত ১০ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার বিকালে ইয়াসমিন আক্তারের বাড়িতে বেড়াতে যায় আলামিনের মামাতো ভাই মিজানুর রহমান। এ সময় বাড়ির পার্শ্ববর্তী একটি ব্রিজে বেড়াতে যায় মিজানুর, ইয়াসমিন ও তার জ্যেঠাতো বোন মারজিয়া। এ সংবাদ শুনে প্রেমিক আলামিন কয়েকজন সঙ্গীসহ এসে মিজানুর ও প্রেমিকা ইয়াসমিনকে মারধর করে। এই অপমানের যন্ত্রণা সইতে না পেরে ইয়াসমিন সবার অজান্তে রাত ১০টার দিকে বাড়ির সামনের আমগাছে ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে। নিহত ইয়াসমিন আক্তার উপজেলার তারাপুর ইউনিয়নের চাচিয়া মীরগঞ্জ গ্রামের ইয়াসিন আলীর মেয়ে ও চাচিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী ছিল।এ ঘটনায় মেয়ের বাবা বাদী হয়ে আলামিনসহ ৬ জনকে আসামি করে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। সুন্দরগঞ্জ থানার এসআই তাজুল ইসলাম বলেন থানায় অভিযোগ করা হয়েছে। আসামিদের গ্রেফতারে চেষ্টা করছে পুলিশ। 

পাঠকের মন্তব্য