পাইকগাছার কৃত্রিম পা পেয়ে স্বাভাবিক জীবনে জাফর 

পাইকগাছার কৃত্রিম পা পেয়ে স্বাভাবিক জীবনে জাফর 

পাইকগাছার কৃত্রিম পা পেয়ে স্বাভাবিক জীবনে জাফর 

পাইকগাছায় ইউপি চেয়ারম্যানের দেওয়া কৃত্রিম পা সংযোজন করে সড়ক দুর্ঘটনায় পঙ্গু যুবক জাফর পুর্বের মতো জীবন যুদ্ধে বেঁচে থাকার স্বপ্ন দেখছেন। মঙ্গলবার সকালে লস্কর ইউনিয়ন পরিষদ লক্ষ্মীখোলায় চেয়ারম্যান কেএম আরিফুজ্জামান তুহিনের অর্থ সহয়তায় জাফর তার একমাত্র শিশুপুত্র, বাবা-মায়ের উপস্থিতিতে কৃতিম পা সংযোজন করে আনন্দে কান্নায় ভেঙে পড়ে সকলের কাছে দোয়া চেয়ে লজ্জার ভিক্ষাবৃত্তি ত্যাগ করার কথা জানান।

উপজেলার বিরাশী গ্রামের আনছার মোড়লের ছেলে জাফর এ বছরের জানুয়ারীতে ইটভাটা শ্রমিক হিসেবে সড়ক পথে সিএনজিতে করে লক্ষীপাশায় যাচ্ছিল। এক সময় লোহাগোড়া পৌছালে দ্রুত গতির পিকআপ  সিএনজিকে চাপা দিলে জাফর সহ অনেকে হতা-হত হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার উরুর নিচু থেকে ডান পা সম্পূর্ন কেটে বাদ দিলে জাফর পঙ্গুত্ব বরণ করে। চেয়েরম্যানের উপকারের কথা আজীবন মনে রাখার কথা বলে জাফরের দরিদ্র বাবা আনছার মোড়ল-মা ছায়মন বিবি জানান, পঙ্গু ছেলের জন্য ভিটেবাড়ীর ২ শতক জমি বিক্রি করে চিকিৎসা করাই। সংসার অচল হয়ে পড়লে নিরুপায় হয়ে জাফর কমিশনের বিনিময়ে অন্যদের সাহায্যে ভিক্ষা বৃত্তিতে নেমে পড়েন। নাজুক এ অবস্থার মধ্যে ইতোমধ্যে পঙ্গু স্বামী, একমাত্র শিশুপুত্র রাসেল কে রেখে স্ত্রী সংসার ছেড়ে চলে গেছেন। ইউপি চেয়ারম্যান তুহিন জানান, ঈদুল ফিতরের পুর্বে ভ্যানে করে দুজন ছেলের সাহায্যে জাফর ইউনিয়ন পরিষদে ভিক্ষাবৃত্তি করতে আসলে আমি নিজেকে সামলাতে পারেনি। তাই তার প্লাস্টিক সার্জারী কৃতিম পা'র জন্য প্রায় ৫০ হাজার টাকা খরচ হলেও জাফর চলাফেরা করতে পারছে এটাই আমার শান্তি।

পাঠকের মন্তব্য