বাংলাদেশ সফরেও ছুটিতে ধোনি ! অবসর জল্পনা

বাংলাদেশ সফরেও ছুটিতে ধোনি ! অবসর জল্পনা

বাংলাদেশ সফরেও ছুটিতে ধোনি ! অবসর জল্পনা

মহেন্দ্র সিং ধোনি ঠিক কী চাইছেন, সেটাই এখন লাখ টাকার প্রশ্ন। বিশ্বকাপের পর থেকেই কোনও না কোনও আছিলায় ক্রিকেট মাঠের বাইরে তিনি। প্রথমে বিসিসিআইয়ের কাছে ২ মাসের ছুটি নিয়ে তিনি যান সেনার প্রশিক্ষণ নিতে। ইতিমধ্যেই সেই ছুটি শেষ হয়েছে। দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে টি-টোয়েন্টিতে দেখা যায়নি মাহিকে। এবার বাংলাদেশ সফর থেকেও নিজেকে সরিয়ে নিলেন ‘ক্যাপ্টেন কুল’। মাহির এই সিদ্ধান্ত নিয়ে রীতিমতো ধন্দে সমর্থকরা। অবসর না নিয়েও কেন নিজেকে ক্রিকেট মাঠ থেকে সরিয়ে রাখছেন মাহি? সে প্রশ্নেরই উত্তর খুঁজছেন সমর্থকরা।

বিশ্বকাপের আগে থেকেই জল্পনা ছিল, আইসিসির মেগা ইভেন্টের পরই ক্রিকেটকে বিদায় জানাবেন মাহি। কিন্তু, সে জল্পনায় জল ঢেলে দিয়েছেন ধোনি। বিশ্বকাপে হতাশাজনক পারফরম্যান্সের পরও তিনি অবসর ঘোষণা করেননি। পরিবর্তে, ক্রিকেট থেকে মাস দুয়েকের ছুটি নিয়ে তিনি চলে যান সিয়াচেনে ভারতীয় সেনার সঙ্গে ট্রেনিং করতে। ফিরে আসার পরও মাহিকে আর জাতীয় দলের জার্সি গায়ে দেখা যায়নি। এরই মধ্যে, ধোনির উত্তরসূরি হিসেবে পন্থকে সুযোগ দেওয়া হয়েছে। তাঁর পারফরম্যান্স আহামরি কিছু না হলেও, প্রতিভা নিয়ে কোনও সংশয় নেই নির্বাচকদের। পন্থ একপ্রকার পাকাপাকিভাবেই জাতীয় দলে ঢুকে গিয়েছেন। নির্বাচকরাও বুঝিয়ে দিয়েছেন, এই মুহূর্তে তিন ফরম্যাটেই উইকেটর রক্ষক হিসেবে প্রথম পছন্দ তিনি। ঋষভের এই উত্থান ধোনির অবসর জল্পনাকে আরও তরান্বিত করেছে।

এরই মধ্যে মুম্বইয়ের এক নামী সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, ধোনি বোর্ডকে জানিয়েছেন, তিনি আগামী নভেম্বর পর্যন্ত ছুটিতে থাকতে চান। যার অর্থ, আসন্ন বাংলাদেশ সফরেও দলে থাকবেন না মাহি। শুধু তাই নয়, ঘরোয়া ক্রিকেটে বিজয় হাজারে ট্রফিতেও ঝাড়খণ্ডের জার্সিতে দেখা যাবে না ধোনিকে। আগামী ডিসেম্বরে জাতীয় দলের শিবিরে যোগ দিতে চান বলে জানিয়েছেন মাহি। অর্থাৎ, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ভারত সফরে এলে, সেই সিরিজে দেখা যেতে পারে মাহিকে। যদি, তিনি তাঁর আগে অবসর ঘোষণা না করেন।

পাঠকের মন্তব্য