কাঁদায় মাখামাখি হলেও হাসিমুখেই মাঠ ছাড়লো বাংলাদেশ

কাঁদায় মাখামাখি হলেও হাসিমুখেই মাঠ ছাড়লো বাংলাদেশ

কাঁদায় মাখামাখি হলেও হাসিমুখেই মাঠ ছাড়লো বাংলাদেশ

ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশের চেয়ে দুই ধাপ এগিয়ে ছিল ভুটান (১৮৫তম)। তারপরও নিজেদের মাঠে ফেভারিট হয়েই মাঠে নামে বাংলাদেশ দল। ৯০ মিনিটের লড়াই শেষে ফেভারিটদেরই হাসিমুখ। আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে অনায়াস জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ল জামাল ভূঁইয়ার দল।

রোববার সন্ধ্যায় বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচে ভুটানের বিপক্ষে ৪-১ গোলে জিতেছে বাংলাদেশ ফুটবল দল। র‌্যাঙ্কিংয়ে এগিয়ে থাকা দলটির বিপক্ষে স্বস্তির জয় পেল স্বাগতিকরা। আগামী ১০ অক্টোবর ঢাকায় কাতারের সঙ্গে লড়াই। এরপরই কলকাতায় বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে মাঠে নামবে বাংলাদেশ দল। এই দুই ম্যাচের প্রস্তুতি পর্বে দুটি ম্যাচ খেলার সুযোগ পেয়েছে দল। যার প্রথমটিতেই ভুটানকে হারিয়ে প্রস্তুতি পর্বের শুরুটা দারুণ হলো লাল-সবুজের প্রতিনিধিদের।

বৃষ্টি বিঘ্নিত ম্যাচে মাঠ ছিল বেশ কর্দমাক্ত। এর মধ্যে স্ট্রাইকার নাবীব নেওয়াজ জীবন করেন জোড়া গোল। অন্য দুটি গোল করেন বিপলু আহমেদ ও রবিউল হাসান।

অনেক দিন ধরেই আন্তর্জাতিক ম্যাচে গোলের দেখা পাচ্ছিলেন না নাবীব নেওয়াজ জীবন। এবার জোড়া গোলেই দূর হলো আক্ষেপ। খেলার ১২তম মিনিটে দলের প্রথম গোলটি করেন এই স্ট্রাইকার। অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়ার ভাসানো ক্রসে জীবনের হেড (১-০)।

খেলার ৩৬তম মিনিটে ফের জীবনের গোল। ডান প্রান্ত থেকে মোহাম্মদ ইব্রাহিমের ক্রসে তার ডান পায়ের সাইড ভলি (২-০) আশ্রয় নেয় ভুটানের জালে। এর মধ্যে অবশ্য স্রোতের বিপরীতে ভুটান ৫১তম  মিনিটে ব্যবধান কমায়।

এরপর একাধিক গোল মিসের মহড়া দিয়েছে বাংলাদেশ। মনে হচ্ছিল কষ্ট করেই বুঝি জিতবে দল। কিন্তু ৭৩তম মিনিটে ব্যবধান বাড়িয়ে নেয় দল। গোলদাতা বিপলু। ৮৩তম মিনিটে দলের হয়ে চতুর্থ গোলটি করেন রবিউল। কাঁদায় মাখামাখি হলেও হাসিমুখেই মাঠ ছাড়ে বাংলাদেশ দল।

আগামী ৩ অক্টোবর আরেকটি প্রীতি ম্যাচে লড়বে বাংলাদেশ-ভুটান।
 
বাংলাদেশ দল

আশরাফুল ইসলাম রানা, বিশ্বনাথ ঘোষ, রহমত মিয়া, ইয়াসিন খান, জামাল ভূঁইয়া, বিপলু আহমেদ, নাবীব নেওয়াজ জীবন (মাহবুবুর রহমান সুফিল), সোহেল রানা, মোহাম্মদ ইব্রাহিম (রবিউল হাসান), রিয়াদুল হাসান ও সাদউদ্দিন।

পাঠকের মন্তব্য