কুড়িগ্রামে রেলের পরিত্যক্ত ভবনে আশ্রিতদের পূণর্বাসনের দাবী

কুড়িগ্রামে রেলের পরিত্যক্ত ভবনে আশ্রিতদের পূণর্বাসনের দাবী

কুড়িগ্রামে রেলের পরিত্যক্ত ভবনে আশ্রিতদের পূণর্বাসনের দাবী

কেউ মুছি, কেউ ভিক্ষাবৃত্তি করে, কেউবা দিনমজুর, আচার বিক্রেতা বা রিক্সা-ঠেলাগাড়ী চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করে। বিগত ২৫ বছর ধরে কুড়িগ্রাম রেলওয়ে স্টেশনের পরিত্যক্ত স্টাফ কোয়ার্টারে বসবাস করে আসছে ৪২টি ভূমিহীন পরিবার।

চলতি মাসের ১৬ অক্টোবর কুড়িগ্রাম জেলায় প্রথম আন্তনগর ট্রেন চালু হওয়ার ঘোষণায় কপাল পুড়েছে এসব পরিবারের। রেলওয়ে কর্মকর্তাগণ কোয়ার্টার ছেড়ে দিতে মৌখিক নির্দেশ দেওয়াও স্বল্প সময়ে কোথায় যাবে এনিয়ে উদ্বিগ্ন ও দিশেহারা এসব পরিবারের লোকজন।

বৃহস্পতিবার কাজ ফেলে অসহায় ভূমিহীন পরিবারগুলো দাঁড়িয়েছে জেলা প্রশাসকের ভবন চত্বরে। তাদের দাবী অসহায় ৪২টি পরিবারকে পূণর্বাসনের। এছাড়াও সময় বর্ধিতকরণের জন্য। ভূমিহীনদের পক্ষে আব্দুল কাদের, মো: আশরাফ, বিপ্লব, সাইফুল ও দুলুরা জেলা প্রশাসকসহ প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন হস্তান্তর করেছেন।

আবেদনে জানা যায়, ১৯৯৪ সালে কোয়ার্টারগুলো পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়। তখন রেলের অধ:পতন শুরু হয়েছে। এ সময়ে ভাসমান কয়েকটি পরিবার স্টেশনের জরাজীর্ন ও পরিত্যক্ত ভবনে আশ্রয় নেয়। তখন থেকেই পরিবার নিয়ে বসবাস করে আসছে তারা। গত ৯ অক্টোবর রেলের এক কর্মকর্তা আগামী ১২ অক্টোবরের মধ্যে কোয়ার্টার ছেড়ে দিতে বলায় ঘুম নেই ৪২টি পরিবারে। এসব অসহায় পরিবার এখন কোথায় দাঁড়াবে, কোথায় মাথা গুজবে এই নিয়ে চরম শঙ্কায় দিন কাটছে।

পাঠকের মন্তব্য