কুতুবদিয়ায় ইউএনও'র উদ্যোগে বাল্য বিয়ে বন্ধ

কুতুবদিয়ায় ইউএনও'র উদ্যোগে বাল্য বিয়ে বন্ধ 

কুতুবদিয়ায় ইউএনও'র উদ্যোগে বাল্য বিয়ে বন্ধ 

কুতুবদিয়ায় উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তার উদ্যোগে বাল্য বিয়ে বন্ধ করে দেয়া হয়। জানা যায় আজ ১৬ অক্টোবর (বুধবার), উপজেলার কৈয়ারবিল ইউনিয়নের জামেয়া নুরানিয়া বালিকা দাখিল মাদ্রাসার ৬ষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্রী একই ইউনিয়নের সেন্টারপাড়া এলাকার মোস্তাক আহমদের মেয়ে তসলিমা আকতার (১৩) এর সাথে বড়ঘোপ ইউনিয়নের রোমাই পাড়া এলাকার জাবের আহমেদের ছেলে মোঃ ইদ্রিছ (১৮) বিয়ের দিন ধায্য ছিল। বাল্য বিয়েটির খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জিয়াউর হক মীর কৈয়ারবিল ইউপির চেয়ারম্যান জালাল আহমদ, জামেয়া নুরানিয়া বালিকা দাখিল মাদ্রাসার সুপার জাকের হোসাইন, প্যানেল চেয়ারম্যান কপিল উদ্দীনসহ অন্যান্য ইউপি সদস্যদের সাথে নিয়ে তাৎক্ষণিক বাল্য বিয়েটি বন্ধ করে দেন। 

এব্যাপারে কুতুবদিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জিয়াউর হক মীরের সাথে কথা হলে তিনি জানান, আজ দুপুরে কৈয়ারবিল জামেয়া নুরানিয়া বালিকা দাখিল মাদ্রাসার ৬ষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্রীকে জোরপূর্বক বাল্য বিয়ে দেওয়ার খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক স্থানীয় চেয়ারম্যান, মাদ্রাসার সুপার, ইউপি সদস্য এবং আইন শৃঙ্খলা বাহিনী সদস্যদের নিয়ে বাল্য বিবাহ নিরোধ আইনের অালোকে বাল্য বিয়েটি ভেঙ্গে দেওয়া হয়। সাথে সাথে মেয়ের বাবা-মাকেও হুশিয়ার করে দিয়ে ছাত্রীকে লেখাপড়া করানোর জন্য নির্দেশ প্রদান করি।

পাঠকের মন্তব্য