বাল্য বিয়ে বন্ধে নোটারি পাবলিক'কে আরো সচেতন হতে হবে  

বাল্য বিয়ে বন্ধে নোটারি পাবলিক'কে আরো সচেতন হতে হবে  

বাল্য বিয়ে বন্ধে নোটারি পাবলিক'কে আরো সচেতন হতে হবে  

দেশে বাল্য বিবাহ বন্ধের জন্য সরকার সভা সেমিনার সহ বিভিন্ন ভাবে দেশে বাল্য বিবাহ বন্ধ করার জন্য জনসচেতনতা মূলক কাজ করে যাচ্ছে। বাল্য বিবাহ বন্ধের জন্য মিডিয়া কর্মীরাও কাজ করে যাচ্ছে। দেশের মানুষের নিকট একটি খবর পৌঁছে গেছে যে বাল্য বিবাহ একটি সামজিক অপরাধ। এখন বাল্য বিবাহ হচ্ছে নোটারি পাবলিকের মাধ্যমে।

গ্রামের সাধারন মানুষ নোটারি পাবলিক বোঝে না। তারা বোঝে কোর্টে গিয়ে আইনজীবীর মাধ্যমে সরকারের অনুমতি নেওয়া হচ্ছে। তখন আর বাধা কোথায় ? দেখা যায় যে এখন অধিকাংশ মানুষ তার কন্যাকে বাল্য বিবাহ দিতে হলে কোর্টে উকিলের কাছে নিয়ে এসে নোটারি পাবলিক করে বাড়ি নিয়ে ধুমধাম করে গ্রামের মাওলানা দিয়ে বিয়ে পড়াচ্ছে।

তাতে আর গ্রামের কেউ বাধা তৈরি করছে না। তখন সবাই বলছে যে কোট থেকে বিয়ে দিয়ে নিয়ে এসেছে এখন কার কিছুই করার নেই। কিন্ত ছেলে মেয়ে যখন ভালবাসা করে নিজেরা বিয়ে করছে তখন কোন কোন বাবা মা ছেলে পক্ষের নামে নারী অপহরণ মামলা করে দিচ্ছে। তখন অনেকে সমস্যায় পড়ে যাচ্ছে। কিন্ত যার এই ধরনের বিয়ে করতে উদ্ভুদ্ধ করছে তারা থেকে যাচ্ছে ধরা ছোয়ার বাহিরে।

মাঝে মাঝে জেলা প্রশাসক কোন কোন আইনজীবীকে ডেকে ধমক দিয়ে ছেড়ে দিচ্ছে তারা আমার ফিরে গিয়ে পূর্বের কাজে লিপ্ত হয়ে যাচ্ছে। কোন সমস্যার সমাধান করতে গেলে মুল জাইগা থেকে সমাধান করতে হয়।

তাই দেশে এখন বাল্য বিবাহ বন্ধ করতে গেলে নোটারি পাবলিকের মাধ্যমে বিবাহের ঘোষণা কে বন্ধ করতে হবে সেই সাথে যে আইনজীবী এই কাজের সাথে সংশ্লিষ্ট থাকবে তাকে শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে। তাহা না হলে বাল্য বিবাহ বন্ধে সরকারের সকল চেষ্টা ব্যর্থতায় রূপান্তরিত হবে।

তাই দেশে বাল্য বিবাহ থামাতে হলেনোটারি পাবলিক কে থামাতে হবে।

পাঠকের মন্তব্য