দিল্লির বায়ু দূষণ : পলিউশন মাস্ক পরে টাইগারদের অনুশীলন

দিল্লির বায়ু দূষণ : পলিউশন মাস্ক পরে টাইগারদের অনুশীলন

দিল্লির বায়ু দূষণ : পলিউশন মাস্ক পরে টাইগারদের অনুশীলন

বাংলাদেশের বিরুদ্ধে প্রথম টি-২০ খেলতে ইতোমধ্যেই দিল্লি পৌঁছেছে বাংলাদেশ দল। আজ বৃহস্পতিবার অনুশীলনেও নেমে পড়েছিলের টাইগাররা। দিল্লির বায়ু দূষণ এই মুহূর্তে আলোচনার কেন্দ্রে। দীপাবলির পর দিল্লির এই দূষণ কোনও নতুন ঘটনা নয়। এই সময়ে মাঠে অনুশীলনের সময় পলিউশন মাস্ক (দুষণরোধক মুখোশ) পরতে হয়েছে বাংলাদেশ দলের কোনো কোনো ক্রিকেটারকে।

আগামী রোববার দিল্লির অরুণ জেটলি স্টেডিয়ামে টি-২০ ম্যাচ দিয়ে শুরু হতে চলেছে বাংলাদেশ-ভারত সিরিজ। কিন্তু দীপাবলির পর ক্রমশ খারাপ হচ্ছে দিল্লির আবহাওয়া। আর সে কারণেই বেশ কয়েকজন পরিবেশবিদ বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলীকে একটি খোলা চিঠি লিখে দাবি জানিয়েছেন, দিল্লি থেকে ম্যাচ অন্যত্র সরিয়ে নেওয়ার।

তাঁরা দাবি জানিয়েছেন, ক্রিকেটারদের শরীরের কথা ভেবে এখান থেকে খেলা সরিয়ে নিয়ে যাওয়া উচিৎ। পরিবেশবিদদের দাবি, এই আবহাওয়ায় তিন-চার ঘণ্টা খেললে খেলোয়াড়দের শরীরের উপর প্রভাব পড়বে। পরিবেশবিদ জ্যোতি পাণ্ডে ও রবীনা রাজ কোহলি সেই খোলা চিঠিতে লেখেন, ‘‘৩ নভেম্বর দিল্লির ফিরোজ শাহ কোটলায় বাংলাদেশের বিরুদ্ধে টি২০ ম্যাচ খেলবে ভারত। যখন বায়ু দূষণের পরিমাণ মারাত্মক পর্যায়ে পৌঁছে যাবে।”

এদিন বাংলাদেশি ব্যাটসম্যআন লিটন দাসকে দেখা গেল পলিউশন মাস্ক পরে অনুশীলন করতে।

প্রাক্তন ক্রিকেটার গৌতম গম্ভীর বুধবার বলেছিলেন, হাওয়া দূষণ অনেক বড় চিন্তার বিষয় ক্রিকেট ম্যাচের থেকে।

এএনআইকে গম্ভীর বলেছিলেন, ‘‘দিল্লি ক্রিকেট ম্যাচ বা অন্য কোনও খেলা হবে কিনা সেটার থেকেও অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল দূষণ। আমার জানিনা যারা দিল্লিতে থাকে তাঁরা অনেক বেশি চিন্তিত দূষণ নিয়ে নাকি ক্রিকেট ম্যাচ ‌‌‌নিয়ে।”

ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় বৃহস্পতিবার জানিয়ে দিয়েছেন পরিকল্পনা অনুযায়ীই ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে প্রথম টি-২০ ম্যাচটি দিল্লিতেই হবে।

এএনআই সৌরভের সঙ্গে যোগাযোগ করে জানতে চায় দিল্লির আবহাওয়ার সমস্যার পরও সেখানেই হবে ম্যাচ হবে কিনা। তার জবাবে সৌরভ জানান, ‘‘হ্যাঁ, হবে।” দীপাবলির পর থেকে দিল্লির আবহাওয়া ক্রমশ খারাপ হচ্ছে। যার ফলে অনেকেই মনে করছিল, দিল্লির এই আবহাওয়ায় খেললে ক্রিকেটারদের শারীরিক ক্ষতি হতে পারে। মঙ্গলবার পরিবেশবিদরাও সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে খোলা চিঠি লিখে ম্যাচ অন্যত্র নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছিল।

সাকিব আল হাসানকে ছাড়াই ভারতে গিয়েছে বাংলাদেশ দল। অন্যদিকে, বিশ্রাম দেওয়া হয়েছে ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলিকে। এই অবস্থায় দুপক্ষই দলের দুই সেরা তারকাকে ছাড়াই মুখোমুখি হচ্ছে। বিরাট কোহলি টেস্ট সিরিজে ফেরবেন দলের নেতৃত্বে। সূত্র: এনডিটিভি

পাঠকের মন্তব্য