মায়ের জন্য ৫০ বছরের পাত্র চাই, প্রশংসায় ভাসছে তরুণী 

মায়ের জন্য ৫০ বছরের পাত্র চাই, প্রশংসায় ভাসছে তরুণী 

মায়ের জন্য ৫০ বছরের পাত্র চাই, প্রশংসায় ভাসছে তরুণী 

‘মায়ের বিয়ে’ ছবিটার কথা মনে আছে? বাংলা ছবিটিতে মায়ের বিয়ে দেওয়ার জন্য আদা জল খেয়ে লেগেছিল মেয়ে। রিল লাইফের মতো এবার রিয়েল লাইফেও ঠিক একই উদ্যোগ নিয়েছেন এক কন্যা। যাঁর পোস্ট এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রশংসা কুড়োচ্ছে।

মেয়ে প্রাপ্তবয়স্ক হলেই তাঁর জন্য পাত্রের সন্ধান শুরু করেন মায়েরা। এমন ছবিই দেখতে অভ্যস্ত এ সমাজ। কিন্তু এক্ষেত্রে হচ্ছে একেবারে উলটো। আস্থা ভার্মা। আইনের ছাত্রী পাত্র খুঁজছেন। তবে মায়ের জন্য। তিনি চান, আরও একবার বিয়ের পিঁড়িতে বসুন মা। তা মায়ের জন্য কেমন পাত্র পছন্দ আস্থার? টুইটারে নিজের থুড়ি মায়ের পছন্দ বিস্তারিত জানিয়েছেন তিনি। লিখেছেন, “৫০ বছরের একজন হ্যান্ডসাম পুরুষ খুঁজছি মায়ের জন্য। তাঁকে অবশ্যই নিরামিষাশী হতে হবে। মদ্যপান চলবে না। এবং প্রতিষ্ঠিত হতে হবে।” মেয়ের এই সন্ধানে যে মা সঙ্গে আছেন, তা আস্থার পোস্ট করা ছবিতেই স্পষ্ট।

সন্তান বড় হয়ে গেলে দ্বিতীয়বার মহিলার বিয়ের কথা এককালে ভাবাও ছিল পাপ। কিন্তু পুরুষতান্ত্রিক সমাজের তথাকথিত সেই ভাবনায় কুঠারাঘাত করতে পেরেছে নব প্রজন্ম। তাদের মুক্ত চিন্তায় ভর করে এখন অনেক ‘অসম্ভব’ ভাবনাই বাস্তবে পরিণত হচ্ছে। তারই দৃষ্টান্ত আস্থার এই খোঁজ। নেটদুনিয়ায় তাঁর এই পোস্টের প্রশংসা করছেন অনেকেই। মেয়ে যে মায়ের মন বুঝে তাঁর ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করেছেন, এতেই খুশি প্রত্যেকে। অনেকে পাত্র খুঁজতে সাহায্যের হাতও বাড়িয়ে দিয়েছে আস্থার দিকে। হিংসা-মারামারি-হাহাকারের যুগে আস্থার আবেগ ও ভালবাসা ভরা পোস্টটি মন ভরিয়েছে নেটদুনিয়ার।

এর আগে ২০১৫ সালে ছেলের জন্য পাত্রের সন্ধান করায় শিরোনামে উঠে এসেছিলেন এক মা। ছেলের সমকামীকে স্বীকৃতি দেওয়ায় প্রশংসা কুড়িয়েছিলেন তিনি। এবার ভারচুয়াল দুনিয়ার আশীর্বাদ ও ভালবাসা পেলেন আস্থা। তবে তিনি কি মায়ের জন্য পাত্র পেলেন? না, তা অবশ্য এখনও জানা যায়নি।

পাঠকের মন্তব্য