গৌরনদীর রাজপথে নারী নেতৃত্বের জয়জয়কার

গৌরনদীর রাজপথে নারী নেতৃত্বের জয়জয়কার

গৌরনদীর রাজপথে নারী নেতৃত্বের জয়জয়কার

নারীর জয়যাত্রা এখন সর্বত্রই। নারী তার আপন মেধা-যোগ্যতায় স্থান করে নিচ্ছে সাফল্যের সর্বোচ্চ শিখরে। একসময় ‘অবরোধবাসিনী’ নারীর এখন ঘরে-বাইরে জয়জয়কার। সমাজের দৃষ্টিভঙ্গীও বদলে গেছে নারীর প্রতি। জীবনের সব রঙ আর কর্মচাঞ্চল্যতা দিয়ে কর্মজীবী নারী সাজাচ্ছে তার জীবন।

‘যে রাধে সে চুলও বাঁধে’-এই প্রবাদ বাক্য এখন সত্যি হয়ে উঠেছে। পরিবার, কর্মক্ষেত্রে, সমাজে সর্বত্রই নারী সাফল্য পেতে নেমেছে চ্যালেঞ্জ নিয়ে। একসময় বাংলাদেশের রাজনীতিতে নারীর অংশগ্রহণ ছিল সীমিত। কিন্তু সাম্প্রতিক বছরগুলোতে রাজনীতিতে নারীর ক্রমবর্ধমান সাফল্য নিয়ে তর্ক করার আর কোনো অবকাশ নেই। দেশের প্রধানমন্ত্রী, বিরোধী দলীয় নেত্রী, জাতীয় সংসদের স্পিকার ছাড়াও সরাসরি নির্বাচিত ও সংরক্ষিত আসনের অনেক সংসদ সদস্য, মন্ত্রী ও সচিব নারী।

পুরুষের পাশাপাশি সবাই নিজ নিজ ক্ষেত্রে দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করে চলেছেন। আবার তাদের কাজের স্বীকৃতিতে পুরস্কৃতও হয়েছেন। নারীদের কর্মক্ষেত্রে সাফল্যের জোয়ার বইছে ঘরে-বাইরে সর্বত্র। এসব কারণেই নারীর ক্ষমতায়নে বিশ্বে বাংলাদেশ রোল মডেল হিসেবে সমাদৃত এবং প্রশংসিত হচ্ছে। অনুরূপ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সর্বোচ্চ কর্তা ব্যক্তি ডিআইজি, অতিরিক্ত আইজিপি, এসপি, এএসপি, থানার ওসি, বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসক, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, স্থানীয় সরকার নির্বাচনে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি ও সরকারের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা হিসেবেও কর্মরত রয়েছেন অসংখ্য নারী। স্ব স্ব ক্ষেত্রে তারা তাদের সাফল্যের স্বাক্ষর রাখছেন। সেনাবাহিনী, পুলিশ, আনসার, বিজিবিসহ সবক্ষেত্রে নারীর অংশগ্রহণ বাড়ছে। ক্রীড়াঙ্গনে একের পর এক সাফল্যের জোয়ার বয়ে আনছে বাংলাদেশের মেয়েরা। অর্থাৎ ভূমি থেকে মহাকাশ, আকাশ থেকে শুরু করে এভারেস্টের সর্বোচ্চ চূড়ায় বিজয়ের পদচিহ্ন এঁকে চলেছেন বাংলাদেশের অদম্য এবং আলোকিত নারীরা। দেশের সংসদে, রাজনীতিতে, প্রশাসনে, ব্যবসা-বাণিজ্য থেকে শুরু করে ক্রীড়াঙ্গনে সাফল্য আর অগ্রযাত্রায় বিশ্বকে জয় করে হাতের মুঠোয় নিয়ে এসেছেন বাংলাদেশের অপরাজিতারা। বেশ কয়েক বছর ধরে বাংলাদেশে নারীরা অগ্রযাত্রার পথে নতুন উদাহরণ সৃষ্টি করেছেন। অদম্য, আলোকিত নারীরা এইভাবেই একে একে বুনেছেন সফলতার গল্প। প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষায় নারীর অবস্থানের ক্ষেত্রে গত বছরের মতো এবারও পৃথিবীতে প্রথম অবস্থানে রয়েছে বাংলাদেশ।

নারীর ক্ষমতায়ন ও উন্নত বাংলাদেশের স্বপ্ন পূরণের অগ্রনী মহানায়ক বঙ্গরতœ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্নকে বাস্তবে রূপ দিতে বরিশালের রাজপথে রয়েছেন অসংখ্য নারী নেত্রীরা। তারা সরকারের নানা উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডকে সাধারণ মানুষের মাঝে ছড়িয়ে দিতে দিনরাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। রাজপথে নারী নেতৃত্বের জয়জয়কারের বাস্তব রূপ মিলেছে গত ১ নভেম্বর বরিশালের গৌরনদীতে। দলের শুদ্ধি অভিযানের অংশহিসেবে গৌরনদী উপজেলা ও পৌর মহিলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে নারী নেত্রীদের নেতৃত্বে তাদের সমর্থক নারীদের নিয়ে মিছিল নিয়ে সম্মেলনস্থলে প্রবেশের মাধ্যমে। খন্ড খন্ড মিছিলের একপর্যায়ে সম্মেলন স্থলের কানায় কানায় পূর্ন হয়ে যায়। নারী নেত্রী ও তাদের সমর্থকদের উপস্থিতিতে তিলধারনের ঠাঁই ছিলোনা গৌরনদী বাসষ্ট্যান্ডে। শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বেগম মাহেরুর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য রাজপথ কাঁপানো নারী নেত্রী সৈয়দা রুবিনা আক্তার মীরা। প্রধান বক্তা ছিলেন জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান সৈয়দা মনিরুন নাহার মেরী। সম্মেলনের উদ্বোধণ করেন জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শ্যামলী সাহা।

বিগত বিএনপি ও জামায়াতের চারদলীয় জোট সরকারের আমলে ঢাকার রাজপথ কাঁপানো নারী নেত্রী সৈয়দা মনিরুন নাহার মেরী বলেন, আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে সার্বিক বিচারে নারীর ক্ষমতায়নে অভূতপূর্ব সাফল্য এসেছে। তিনি আরও বলেন, আমাদের নেত্রী বঙ্গরতœ শেখ হাসিনা যতোবার প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন ততোবারই তিনি নানা প্রতিবন্ধকতা অতিক্রম করে এগিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি নারীকে যথাযোগ্য মর্যাদায় প্রতিষ্ঠিত করতে নিরলসভাবে কাজ করেছেন। এখন যার সুফল পাচ্ছেন এ দেশের নারী নেত্রীরা।

সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য রাজপথ কাঁপানো নারী নেত্রী সৈয়দা রুবিনা আক্তার মীরা বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একান্ত সদিচ্ছা, আন্তরিকতা, প্রতিশ্রুতি আর সমান অধিকারের নীতির ফলেই দেশের সর্বত্র নারীদের এখন চলছে জয়জয়কার। তিনি আরও বলেন, একটি পরিবার, একটি প্রতিষ্ঠান, একটি সমাজ কিংবা একটি দেশ সবক্ষেত্রে নারীদের অংশগ্রহণ, সহযোগিতা ও সমন্বয় ছাড়া শান্তি-সমৃদ্ধি এবং সম্প্রীতির পথে এগোতে পারেনা। তাই এখন বিভিন্ন সংস্থার জরিপেও অর্থনীতিতে নারীর অবদানের বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্বসহকারে তুলে ধরা হচ্ছে। ফলে এখন নির্দ্বিধায় বলার সময় এসেছে যে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে নারীরা এখন তাদের অধিকার আদায় করে নিচ্ছেন।

পাঠকের মন্তব্য