ডাঃ জাফরুল্লাহ এবং মর্তুজা আলীর ষড়যন্ত্রের ফোনালাপ ফাঁস

 ষড়যন্ত্রের ফোনালাপ ফাঁস

ষড়যন্ত্রের ফোনালাপ ফাঁস

বিশ্ববিদ্যালয়ে নারী নির্যাতন এবং নাশকতার ঘৃণ্য ছক। ডাঃ জাফরুল্লাহ এবং মীর মর্তুজা আলীবাবুর ষড়যন্ত্রের ফোনালাপ ফাঁস ।

ডা. জাফরুল্লাহর আরও একটি অডিও ফাঁস হয়েছে। সাভারে গণবিশ্ববিদ্যালয়ে হামলার ঘটনাকে পুঁজি করে দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টির চেষ্টার ষড়যন্ত্র উঠে আসে ওই ফোনালাপে।  গণবিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মীর মুর্তজা বাবুর সঙ্গে ফোনালাপে পরিকল্পিতভাবে নারী শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা করে সরকারকে দায়ী করার চেষ্টার ষড়যন্ত্র বেরিয়ে এসেছে ফাঁস হওয়া ওই অডিওতে।

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী গণবিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রককে বলেন, 'ভালো করে একটু ধাওয়া দিয়েন। ২০ জন ছাত্র রাখো ভালো করে খাওয়া দাওয়া করো। এখন একটু এগ্রসেভ হও। না হলে বদমায়েশি থামাতে পারবো না। এখন একমাত্র পথ হচ্ছে ওরা এক কদম বাড়লে আমাদের ২ কদম বাড়তে হবে।

গণবিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মীর মর্তুজা আলী বলেন, 'জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়ে একটা নিপীড়নবিরোধী মানববন্ধন আছে। সেখানে আমাদের ছেলে মেয়েরাও যাবে।' এরপর ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, 'হ্যা, জাহাঙ্গীর নগরে প্রবেশ করাতে পারলে অনেক লাভ হবে।'

গণবিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মীর মর্তুজা আলী বলেন, 'পুলিশকে আজ বলেছি বিদেশি যে মেয়েগুলো আসছে তাদের নিরাপত্তা দেওয়ার দায়িত্ব আপনাদের।'

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, শুনেছি ইন্ডিয়ান মেয়েরা পিছিয়ে আসছে। ওরা কেনো পিছিয়ে আসবে। আমাদের ৫ হাজার ছাত্র আছে তার ভেতর থেকে ৫০ জনকে যদি আমরা ব্যবহার করতে পারি। কারণ মারপিট করতে ৫০ জনের বেশি ছাত্র লাগে না। মৌলভীকে ২টা মেয়েকে দিয়ে এখন নারী নির্যাতন কেস করায়ে দাও।'

গণবিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মীর মর্তুজা আলী বলেন, 'হ্যা ৫০জন ছাত্রের এখন লিস্ট করা হয়েছে। 

পাঠকের মন্তব্য