গুজবে কান না দিতে বারণ করলেন নুসরত জাহান

গুজবে কান না দিতে বারণ করলেন নুসরত জাহান

গুজবে কান না দিতে বারণ করলেন নুসরত জাহান

রবিবার রাত, প্রচণ্ড শ্বাসকষ্ট নিয়ে বাইপাসের এক বেসরকারি হাসপাতালে ভরতি হয়েছিলেন তৃণমূল সাংসদ নুসরত জাহান। তাঁর শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে দিন তিনেকের মধ্যে কম জলঘোলা হয়নি। সোমবার বেলা বাড়তেই চারিদিক থেকে শোনা গিয়েছে একাধিক রটনা। মাত্রাতিরিক্ত ঘুমের ওষুধ নাকি শ্বাসকষ্ট? সেই জল্পনা শুরু হয়েছিল রাজনৈতিক মহলে। 

এমনকী, মাত্রাতিরিক্ত ঘুমের ওষুধ খেয়েই যে নিদারুণ শ্বাসকষ্টের শিকার হয়েছিলেন নুসরত, এমনটাও শোনা গিয়েছে। বেসরকারি হাসপাতালের তরফে ফুলবাগান থানায় ড্রাগ ওভারডোজের মামলাও করা হয়েছে। কী কারণে অভিনেত্রী তথা বসিরহাটের তৃণমূল সাংসদ মাত্রাতিরিক্ত ঘুমের ওষুধ সেবন করেছিলেন, সে প্রশ্নও কিন্তু উঠেছে। অবশেষে তাঁর শারীরিক অবস্থা সম্পর্কিত যাবতীয় ধোঁয়াশা নিয়ে মুখ খুললেন সাংসদ তথা অভিনেত্রী নুসরত জাহান।

মঙ্গলবার নুসরত নিজেই একটি ভিডিও পোস্ট করে জানান যে, আপাতত সুস্থ তিনি। তবে দিন দুয়েকের বিশ্রাম দরকার। তারপরই সংসদীয় এলাকা পরিদর্শনে যাবেন। এমনকী পার্লামেন্টে সদ্য শুরু হওয়া শীতকালীন অধিবেশনে যোগ দিতে দিল্লিতেও যাবেন দিন কয়েকের মধ্যে। উপরন্তু, সামনেই নুসরত অভিনীত ‘অসুর’ ছবি মুক্তি পাচ্ছে। তাই ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহ থেকেই প্রোমোশনের কাজে কোমর বেঁধে নেমে পড়বেন অভিনেত্রী। অতঃপর জোরকদমে কাজ শুরুর আগে দিন দুয়েক বিশ্রাম নেবেন নুসরত। মঙ্গলবার এমনটাই জানালেন তিনি।

রবিবার রাতে স্বামী নিখিল জৈনের জন্মদিনের পার্টিতে আচমকাই অসুস্থ হয়ে পড়েন নায়িকা। তড়িঘড়ি ভরতি করা হয় হাসপাতালে। প্রায় চব্বিশ ঘণ্টা চিকিৎসকদের পর্যবেক্ষণে থাকার পর সোমবার রাতে হাসপাতাল থেকে ছাড়া পান নুসরত জাহান। তারপর প্রায় চুপিসারেই পাম অ্যাভিনিউয়ের বাড়িতে চলে যান।

তা এখন কেমন আছেন তৃণমূল সাংসদ? আপাতত মা-বাবার সঙ্গে রয়েছেন। বিশ্রামে রয়েছেন। নায়িকার কথায়, “ডাস্ট অ্যালার্জি থেকেই রবিবার শ্বাসকষ্টের সমস্যা শুরু হয়। কোনও রকম গুজবে কান দেবেন না। অনেক কাজ পড়ে রয়েছে। দিন দুয়েক বিশ্রাম নিয়েই কাজে ফিরব।” ছোট থেকেই অ্যাজমার সমস্যা রয়েছে। তাই শ্বাসকষ্টের সমস্যা শুরু হলে হাতের কাছে ইন-হেলার না থাকলেই প্রচণ্ড শরীর খারাপ হয়ে যায় তাঁর। এমনটাই জানালেন অভিনেত্রী তথা সাংসদ নুসরত জাহান।    

পাঠকের মন্তব্য