নিষিদ্ধ হয়েছে ইংলিশ জায়ান্ট ম্যানচেস্টার সিটি

নিষিদ্ধ হয়েছে ইংলিশ জায়ান্ট ম্যানচেস্টার সিটি

নিষিদ্ধ হয়েছে ইংলিশ জায়ান্ট ম্যানচেস্টার সিটি

উয়েফার সব আসর থেকে দুই বছর নিষিদ্ধ হয়েছে ইংলিশ জায়ান্ট ম্যানচেস্টার সিটি।

ফিফার ফেয়ার প্লে এবং ক্লাব লাইসেন্স নীতি ভঙ্গের অভিযোগে উয়েফার সব আসর থেকে দুই বছর নিষিদ্ধ হয়েছে ইংলিশ জায়ান্ট ম্যানচেস্টার সিটি। একই সাথে ২৪ দশমিক ৯ মিলিয়ন পাউন্ড জরিমানা গুনতে হবে ক্লাবটাকে। সিটিজেন কর্তৃপক্ষ বলছে, সিদ্ধান্তটা দুঃখজনক হলেও তাতে অবাক হয়নি তারা। ইস্যুটি নিয়ে ক্রীড়া আদালতে যাওয়ারও সিদ্ধান্ত জানিয়েছে ম্যানসিটি।

ম্যানচেস্টার সিটি, ইউরোপের জায়ান্ট ক্লাবগুলোর একটা। কোচ পেপ গার্দিওলার সুবাদে গত কয়েক মৌসুম ধরে ইউরোপে দারুণ দাপট ধরে রেখেছে ক্লাবটা। ২০০৮ সাল থেকেই ক্লাবের মালিকানা চলে যায় আরব শেখদের কাছে। দেদারসে টাকা খরচ করতে গিয়ে উয়েফার নজরে পড়েছে দুনিয়াজোড়া জনপ্রিয় ক্লাবটা।

উয়েফার অভিযোগে বলা হয়, ২০১২ থেকে ১৬ সাল পর্যন্ত প্রয়োজনীয় তথ্য উয়েফাকে দিতে ব্যর্থ হয়েছে সিটি। লভ্যাংশ নিয়ে ভুল তথ্য দেয়ায় এবং তদন্তে সহায়তা না করার অভিযোগও এনেছে ইউরোপিয়ান ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা।

উয়েফার এসব অভিযোগ ছাড়াও ইউরোপের গণমাধ্যমগুলো বলছে, স্পন্সরশিপ চুক্তির অর্থের মোট অঙ্ক নিয়ে উয়েফাকে ভুল তথ্য দিয়েছিল ম্যানচেস্টার সিটি। আর এসব আমলে নিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগসহ উয়েফার সব আসর থেকে দুই মৌসুমের জন্য ক্লাবটাকে নির্বাসনে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। সেক্ষেত্রে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে পরের সিজনে ইপিএল থেকে সুযোগ পাবে পাঁচ নম্বর দলটা। তবে সিটিজেন নারী দল এই নিষেধাজ্ঞার আওতায় পড়বে না। আর ম্যানসিটি চাইলে করতে পারবে আপিল।   

নিজেদের বিরুদ্ধে ওঠা সব অভিযোগ অবশ্য প্রথম থেকেই অস্বীকার করে আসছে ম্যানসিটি কর্তৃপক্ষ। নিজেদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত অফিসিয়াল স্টেটমেন্টে তারা জানিয়েছে, এমন সিদ্ধান্ত আসায় তারা হতাশ হলেও অবাক হয়নি মোটেও।   

উয়েফার এমন শক্ত অবস্থানে নড়েচড়ে বসেছে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগও। তাদের তদন্তে কোনো গোলমাল ধরা পড়লে কেটে রাখা হতে পারে ম্যানসিটির ইপিএল পয়েন্ট। 

পাঠকের মন্তব্য