গাইবান্ধায় ব্যাপক তামাকের চাষ- জনস্বাস্থ্য হুমকির মুখে

গাইবান্ধায় ব্যাপক তামাকের চাষ- জনস্বাস্থ্য হুমকির মুখে

গাইবান্ধায় ব্যাপক তামাকের চাষ- জনস্বাস্থ্য হুমকির মুখে

গাইবান্ধায় চলতি মৌসুমে ব্যাপক তামাকের চাষ করা হয়েছে। কো¤পানিগুলোর দেওয়া বিভিন্ন সুযোগ সুবিধায় দিন দিন কৃষকরা ঝুঁকছেন তামাক চাষে। ফলে স্বাস্থ্য ঝুঁকি, মাটির উর্বরতা শক্তি হ্রাস ও পরিবেশের উপর বিরূপ প্রভাব পড়ছে। জানা যায়,গাইবান্ধায় গোবিন্দগঞ্জ, পলাশবাড়ী ও সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় বিশাল এলাকা জুড়ে তামাকের ব্যাপক চাষ হয়েছে। এ তিন উপজেলায় ধান, পাট, ডাল, গমসহ নানা জাতের খাদ্যশস্য লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি উৎপাদন হতো। যা স্থানীয় চাহিদা পূরণ করে বিভিন্ন জেলায় সরবরাহ করা হতো। পলাশবাড়ী উপজেলার কৃষি কর্মকর্তা আজিজুল ইসলাম বলেন উপজেলার কিশোরগাড়ী ইউনিয়নের করতোয়া নদীর চরে কিছু কৃষক তামাক চাষ করেছে। 

ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো (বিএটিবি), ঢাকা টোব্যাকো, আবুল খায়ের টোব্যাকোসহ বিভিন্ন কো¤পানি পলাশবাড়ী উপজেলায় তামাক শিল্প গড়ে তুলেছে। তারা চাষিদের মধ্যে সার, বীজ ও কীটনাশকসহ নানা উপকরণ দিয়ে আসছে। অপর দিকে চাষিরা বলেন ধানসহ অন্যান্য ফসলের ন্যায্যমূল্য না পাওয়া এবং কো¤পানিগুলোর দেওয়া প্রণোদনার কারণে তামাক চাষে ঝুঁকছে এলাকার অনেক কৃষক। কো¤পানিগুলো অগ্রিম ঋণ, সার, বীজ, ক্রয়ের নিশ্চয়তা এবং অধিক লাভের আশায় চাষিরা তামাকের চাষ করে। 

কিশোরগাড়ী ইউনিয়নের তামাক চাষি জাহিদুল ইসলাম বলেন, তামাক চাষ নিষিদ্ধ হলেও আমাদের বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করে আসছে কো¤পানিগুলো। স্বল্প খরচে অধিক লাভ। গাইবান্ধা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, জেলায় এবার তামাকের চাষ অনেক কম হয়েছে। গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় ৯ হেক্টর এবং পলাশবাড়ীতে ১ হেক্টর জমিতে তামাক চাষ হয়েছে। গাইবান্ধা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মাসুদুর রহমান বলেন তামাক চাষিদের বিকল্প ফসলের চাষ করতে বিভিন্নভাবে তাদের উৎসাহিত করা হচ্ছে। এছাড়া তামাক চাষের বিভিন্ন ক্ষতির দিকগুলো তুলে ধরে তাদের নিরুৎসাহিতসহ সচেতনতা বাড়ানো হচ্ছে। তবে কো¤পানিগুলোর নানা প্রণোদনা দেওয়ার পরও জেলায় এবার কম তামাক চাষ হয়েছে। 

মাঠ পর্যায়ে কৃষকরা সচেতন হলে তামাক চাষ অনেকটা কমে আসবে। গাইবান্ধা সিভিল সার্জন ডা. এবিএম আবু হানিফ বলেন তামাক একটি নিষিদ্ধ ফসল। এটি পরিবেশের উপর বিরূপ প্রভাব ফেলে এবং মানুষের ব্যাপক ক্ষতি করে। তামাক চাষ ও সেবনে মানবদেহের ফুসফুস, হার্ট, কিডনিসহ স্বাস্থ্যের ব্যাপক ক্ষতি করে। সুস্থ জীবন গড়তে তামাক চাষ বন্ধ করতে হবে। সেই সঙ্গে চাষিদের বিকল্প ফসল ফলাতে উৎসাহিত করতে হবে।

পাঠকের মন্তব্য