স্বেচ্ছায় হোম কোয়ারেন্টাইনে যাচ্ছেন সৃজিত ও প্রসেনজিৎ

স্বেচ্ছায় হোম কোয়ারেন্টাইনে যাচ্ছেন সৃজিত ও প্রসেনজিৎ

স্বেচ্ছায় হোম কোয়ারেন্টাইনে যাচ্ছেন সৃজিত ও প্রসেনজিৎ

জোহেনেসবার্গে থেকে দেশে ফিরল ‘কাকাবাবুর প্রত্যাবর্তন’ ছবির গোটা টিম। বৃহস্পতিবার সকালে কলকাতা বিমানবন্দরে নামে অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় ও পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায়। আগামী ৭ থেকে ১০ দিন স্বেচ্ছায় গৃহবন্দি রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন দুই সেলিব্রিটি।

করোনা এখন বিশ্ব মহামারির আকার নিয়েছে। দেশের মানুষকে সুরক্ষিত রাখতে বিদেশ থেকে যাঁরাই দেশে ফিরছেন, তাঁদের প্রত্যেকের বিমানবন্দরে থার্মাল স্ক্রিনিং হচ্ছে। প্রসেনজিৎ ও সৃজিতকেও পরীক্ষা করা হয়। তারপরই তাঁদের বিমানবন্দর থেকে বেরোতে দেয় কর্তৃপক্ষ। প্রসেনজিৎ জানিয়েছেন, জোহেনেসবার্গে করোনার তেমন প্রকোপ নেই। কিন্তু তা সত্ত্বেও সতর্কতামমূলক সমস্ত ব্যবস্থা নেবেন তাঁরা। সাবধানতার জন্য আগামী ৭ থেকে ১০ দিন স্বেচ্ছায় গৃহবন্দি থাকবেন তিনি। চিকিৎসকদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলবেন। জোহেনেসবার্গে এখনও করোনা ছড়িয়ে পড়তে পারেনি। কিন্তু তা সত্ত্বেও সাবধানতা অবলম্বন জরুরি। তার উপর দুবাই বিমানবন্দর হয়ে ফিরেছেন তাঁরা। সেখানেও প্রভাব ফেলেছে করোনা। তাই এই সময় হোম কোয়ারেন্টাইনে যাওয়া অত্যাবশ্যকীয় বলে জানান প্রসেনজিৎ। পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায়ও বিমানবন্দর থেকে বেরিয়ে জানিয়েছেন, তিনিও নিজেকে এখন গৃহবন্দি করে রাখবেন।

আফ্রিকায় ‘কাকাবাবু প্রত্যাবর্তন’ ছবির শুটিং করতে গিয়েছিলেন অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় ও পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায়। কিছুদিন আগেই সৃজিত জানিয়েছিলেন আফ্রিকায় থাবা বসাতে পারেনি করোনা। তাই কাকাবাবুর শুটিং চলছে নিশ্চিন্তেই। কিন্তু টলিপাড়ায় করোনার জেরে বাতিল হয়ে যায় শুটিং। সেই নির্দেশিকা এসে পৌঁছনোমাত্রই শুটিং বাতিল করে দেশে ফিরে এসেছেন ছবির সমস্ত কলাকুশলী ও টেকনিশিয়ানরা। যদিও পরিচালক জানিয়েছেন, শুটিং তাঁদের শেষ হয়ে গিয়েছে। মাত্র একদিনের শিডিউল বাকি ছিল। সেটাই হয়নি।

প্রসঙ্গত, বুধবার সকালে লন্ডন থেকে ‘বাজি’ ছবির শুটিং শেষ করে দেশে ফিরে এসেছেন মিমি চক্রবর্তী ও জিৎ। দেশে ফিরে আইসোলেশনে যাওয়ার কথা ঘোষণা করেন তাঁরাও।

পাঠকের মন্তব্য